নিউজপলিটিক্সরাজ্য

পুলিশের অনুমতি বিনা সমাবেশ, গ্রেপ্তার শুভেন্দু, দিলীপসহ প্রথম সারির বিজেপি নেতারা

শুভেন্দু অধিকারী এবং দিলীপ ঘোষ ছাড়াও বিজেপির আরো বেশ কয়েকজন নেতা গ্রেপ্তার হয়েছেন

বিজেপির পশ্চিমবঙ্গ বাঁচাও দিবস উদযাপন উপলক্ষে ধর্মতলার মেয়ো রোডে হয়েছিল বিজেপির একটি কর্মসূচি। করণা পরিস্থিতিতে অবৈধ জামায়াতের কারণে ওই কর্মসূচি থেকে গ্রেফতার করা বঙ্গ বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী এবং রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী কে। কার্যত এই কর্মসূচি নিয়ে রীতিমতো ধুন্ধুমার অবস্থায় এলাকায়।

প্রথমে রানী রাসমণি এভিনিউতে কর্মসূচি হওয়ার কথা ছিল কিন্তু পুলিশের অনুমতি না মেলায় অবশেষে মেয় রোডে গান্ধী মূর্তি পাদদেশে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন বিরোধী দলের নেতারা। সেই বিক্ষোভ কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী দিলীপ ঘোষ সহ আরো অনেকে। জমায়াতের কথা শুনেই মহামারী আইনে শুভেন্দু এবং দিদিদের গ্রেফতার করা হয়। শুভেন্দু কে কেন্দ্রীয় বাহিনী ঘিরে রাখায় পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয় বলে খবর। এখনো পর্যন্ত বিজেপি মহিলা মোর্চার নেতৃত্বে সেই একই জায়গায় বিক্ষোভ কর্মসূচি চালানো হচ্ছে।

অন্যদিকে, ১৬ আগস্ট দিনটিকে খেলা হবে দিবস হিসেবে ঘোষণা করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। তার প্রতিবাদে এই একই দিনে পশ্চিমবঙ্গ বাঁচাও দিবস পালন করার কর্মসূচি গ্রহণ করেছিল ভারতীয় জনতা পার্টি। তাদের দাবি ছিল, গ্রেট কলকাতা কিলিং এর প্রতিবাদে তাদের কর্মসূচি। এই পশ্চিমবঙ্গ বাঁচাও দিবস কর্মসূচি গ্রহণ করার মাধ্যমে তারা একটি সমাবেশ করেছিল গান্ধী মূর্তির পাদদেশে।

কথামতো, পৌনে দুটো নাগাদ গান্ধী মূর্তির পাদদেশে এসে উপস্থিত হন দিলীপ ঘোষ। একে একে আরো বিজেপি নেতারা উপস্থিত হতে শুরু করেন। দিলীপ ঘোষের পর শুভেন্দু অধিকারী, দেবশ্রী চৌধুরী সহ আরো অনেকে এই কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেছিলেন। জানা যায়, পুলিশের থেকে তাদের কোনো অনুমতি ছিল না এই কারণেই তারা বিক্ষোভ সমাবেশ করছিলেন গান্ধী মূর্তি পাদদেশে। সমাবেশের দরুন মহামারী কলকাতা পুলিশ তাদেরকে গ্রেপ্তার করেছে।

Related Articles

Back to top button