×
কলকাতানিউজরাজ্য

আর কেবল ৩০ বছর, তারপরই জলশূন্য হয়ে যেতে পারে কলকাতা- বলছে সমীক্ষা

Advertisement

কলকাতায় জলের অভাব, জলশূন্য কলকাতা! কি ভাবলে ভয় লাগে তো? এমন হাহাকার হালই হয়ে উঠবে ভবিষ্যতে আমাদের চেনা দৃশ্য। এই কথাই বলছে WWF এর একটি সমীক্ষা। তাদের সমীক্ষাতে ধরা পরেছে এই যে, ২০৫০ সালের মধ্যেই জলকষ্টে ভুগতে হবে পৃথিবীর ১০০ টি শহরবাসীকে। যার মধ্যে রয়েছে আমাদের প্রিয় শহর কলকাতাও। এছাড়াও সেই তালিকায় দেখা গিয়েছে দেশের আরও ৩০টি শহরের নাম। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য এই যে,সেই তালিকার ৫০% শহরই চীনে অবস্থিত।

Advertisement

সম্প্রতি Water Risk Filter নামে এক সমীক্ষার ব্যবস্থা করেছিল WWF। সেই সমীক্ষায় উঠে এসেছে বিশ্বের ১০০ টি শহরের নাম, যাদের ভবিষ্যতে ভুগতে হতে পারে জলের অভাবে। বলা বাহুল্য, এই শহরগুলিতে বাস করেন মোট ৩৫ কোটি মানুষ। সমীক্ষা বলছে যে জলের অভাব তাদের করে তুলতে পারে কাতরপ্রাণা। ভারতের শহরগুলির মধ্যে সবচেয়ে কাতর অবস্থা হতে পারে কলকাতা, দিল্লি, মুম্বাই, জয়পুর, ইন্দোর, অমৃতসর, পুনে, শ্রীনগর, বেঙ্গালুরু , কোঝিকোড় এবং বিশাখাপত্তনমের।

সম্প্রতি এই বিষয়ে WWF India এর এক প্রধান সেজাল ওয়ারার বলেন,”ভারতে দ্রুত হারে শুরু হয়েছে নগরায়ণের কাজ। যার ফলে কমে গিয়েছে জলাশয় এবং জলাভূমি। আমাদের তাই শহরে বেশি করে জলাশয় এবং জলাভূমির সংরক্ষণের কাজ করতে হবে”।

Advertisement

ইতিমধ্যেই জলকষ্ট হানা গিয়েছে ভারত উপমহাদেশে। গতবছর চেন্নাইয়ের মতো শহরে দেখা দিয়েছিল জলের অভাব। যা আরও প্রাসঙ্গিক করে তোলে সমীক্ষার দাবিকে। এইবার মাথায় আসে কেবল একটি প্রশ্ন। তবে এই সঙ্কটের থেকে বাঁচার উপায় কি? এমন সময় উত্তর দিয়েছেন গবেষকরা। তাদের মতে, এখন থেকে জলাশয় সংরক্ষণই এক মাত্র উপায় ভবিষ্যতকে জলকষ্ট মুক্ত রাখার। এছাড়া জল সংরক্ষণ এবং জলের খরচ কমানোর মতো ছোটো পদক্ষেপও কার্যকর হবে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

Related Articles

Back to top button