বলিউডবিনোদন

Sunil Shetty: পাঁচতারা হোটেলে ঝাড়ুদারের কাজ করতেন সুনীল শেট্টির বাবা, আজ বলিউড তারকা হয়ে সেই হোটেলেরই মালিক অভিনেতা

বলিউডের ৯০ দশকের প্রথম সারির অভিনেতাদের মধ্যে একজন সুনীল শেট্টি। অনেক কষ্ট করেই বলিউডে নিজের জায়গা বানিয়েছেন অভিনেতা। ছোট থেকেই অনেক কষ্ট করে বড় হয়েছেন তিনি। আজকের দিনে দাঁড়িয়ে সুনীল শেট্টির পরিচয় আলাদাভাবে দেওয়ার প্রয়োজন নেই। বলিউডে আন্না নামেই খ্যাত তিনি। বর্তমানে বলিউডের ধনী অভিনেতাদের মধ্যে একজন তিনি। তার স্ত্রী মানা শেট্টিরও সম্পত্তির পরিমাণ কিছু কম নয়। তিনি একজন বিজনেস উইমেন। বলিউডের লেডি আম্বানি বলা হয় তার স্ত্রীকে।

আরো পড়ুন :  জিমের পোশাকে মারকাটারি ফিগার, সোশাল মিডিয়া কাঁপালেন দাবাং-এর মুন্নি মালাইকা

একেবারে নিম্ন মধ্যবিত্ত ঘরে জন্মেছিলেন অভিনেতা। মাত্র ৯ বছর বয়সে বাবার সাথে মুম্বাই চলে এসেছিলেন তিনি। পরিবারের সকলের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার জন্য তার বাবা একটি পাঁচতারা হোটেলে ঝাড়ুদারের কাজ করতেন। তবে সেই কাজের জন্য কখনোই তিনি নিজেকে ছোট ভাবেননি। সম্প্রতি অভিনেতা ইন্ডিয়াস বেস্ট ডান্সারের মঞ্চে এমন কথা নিজেই জানিয়েছেন সকলকে। তিনি এও জানান আজও যখন তিনি তার বাবার সেই সমস্ত কষ্টের কথা ভাবেন বাবার প্রতি সম্মানে মাথা নত হয়ে যায় তার।

আরো পড়ুন :  সুশান্ত যখন ঘরে শুয়ে থাকতেন, পাশের ঘরে পার্টিতে মজতেন রিয়া, বিস্ফোরক দাবি নিরাপত্তা রক্ষীর

তার বাবা একসময় যে পাঁচতারা হোটেলে ঝাড়ুদারের কাজ করতেন আজ বলিউডের অভিনেতা হওয়ার পর তিনি সেই হোটেলের মালিক। অভিনেতা জানান তার বাবা ভিরাপা শেট্টি সর্বদা পরিশ্রমে বিশ্বাসী ছিলেন। তিনি তার বাবাকে দেখেই লড়াই করতে শিখেছেন। তিনি এও জানান মাঝে মাঝে সেটে তার শুটিংও দেখতে আসতেন তার বাবা। তিনি বড় হয়ে নিজের বাবাকে তার যোগ্য সন্মান দিতে পেরেছেন, তাতেই তিনি খুশি।

আরো পড়ুন :  হাতে শাঁখা-পলা, সিঁথিতে সিঁদুর! বিয়ের বেশে ভিডিওশুটে অভিনেত্রী মনামী ঘোষ

অভিনেতার বাবা সর্বদা মাথা উঁচু করে বেঁচে থাকায় বিশ্বাসী ছিলেন। এদিন এই ডান্স রিয়্যালিটি শোতে অভিনেতা সাথে উপস্থিত ছিলেন তার সহকর্মী কারিশ্মা কাপুরও। তিনি এই প্রসঙ্গে জানান, সুনীল শেট্টির বাবা ভিরাপা শেট্টি একজন স্বহৃদয় মানুষ ছিলেন। তিনি তার সঙ্গে যতবার দেখা করেছেন ততবার তার জন্য শ্রদ্ধায় মন ভরে গিয়েছিল তার। এদিন ইন্ডিয়াস বেস্ট ডান্সারের মঞ্চে এমন কথা শুনে সকলেই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছিলেন।

Related Articles

Back to top button