নিউজরাজ্য

করোনা আতঙ্কে ভোটের সমস্ত প্রচার বন্ধ করতে চলেছে বামফ্রন্ট, নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত পলিটব্যুরোর

বাম নেতা মোহাম্মদ সেলিম করোনাভাইরাস এর বাড়বাড়ন্ত নিয়ে সমস্ত দোষ দিয়েছেন তৃণমূল এবং বিজেপি সরকারের উপরে

×
Advertisement

বাংলায় নির্বাচনী প্রচার ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে এবং এর মধ্যেই আবার করোনাভাইরাস এর দ্বিতীয় ঢেউ চলে এসেছে বাংলায়। এই কারণে এবারে বামফ্রন্ট তাদের সমস্ত নির্বাচনে ভোট প্রচারে বড় জমায়েত বন্ধ করতে চলেছে। বামফ্রন্ট জানিয়ে দিয়েছে, এবার আর কোনো রকম বড় জমায়েত কিংবা রোড শো করা হবে না। বর্তমান পরিস্থিতির জন্য কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে কটাক্ষ করে মোহাম্মদ সেলিম জানিয়েছেন, বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি এতটা খারাপ ভাবে বেড়ে গিয়েছে, এই কারণে আমরা আমাদের সমস্ত রকম বড় জমায়েত বন্ধ করতে চলেছে আগামী কিছুদিনের জন্য।

Advertisement

করোনা ভাইরাসের ক্রমাগত বাড়তে থাকা ঘটনার জন্য ইতিমধ্যেই আতঙ্ক সৃষ্টি হয়ে গেছে মানুষের মধ্যে। এখনো চারটি দফা নির্বাচন বাকি। তাই এই পরিস্থিতিতে মিটিং মিছিল এবং রোড শো একেবারে জোরকদমে চলছে। কিন্তু, রাজ্যে গত কয়েকদিনের প্রত্যেকদিন প্রায় সাড়ে চার হাজার মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে যেখানে মানুষ জড়ো হচ্ছেন সেখানেই করোনাভাইরাস এর ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাচ্ছে।

এই কারণে বামফ্রন্ট নেতা মোহাম্মদ সেলিম বললেন, এবার থেকে অল্প সংখ্যক কর্মী সমর্থক নিয়ে ছোট ছোট সভা করতে চলেছে বামফ্রন্ট। বাড়ি বাড়ি প্রচার করা হবে বলে জানা যাচ্ছে কিন্তু সেখানে থাকবেন মাত্র কয়েকজন। ভোটের আগে করোনাভাইরাসের বাড়বাড়ন্ত নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছে বামফ্রন্ট। সেলিম বলছেন, “প্রধানমন্ত্রী মোদী এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের করণা মোকাবিলার জন্য আরও বেশি জোর দেয়া উচিত। কিন্তু বর্তমানে দুজনে এখন মেরুকরণের রাজনীতি নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন। ভোট রাজনীতি করতে মানুষে মানুষে বিভেদ তৈরি করছেন তারা। করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন নিয়ে তারা উদাসীন।”

Advertisement

অন্যদিকে করোনাভাইরাস এর বাড়বাড়ন্ত নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরাসরি অভিযোগ করেছেন আবার বিজেপির দিকে। তাই বলা যেতে পারে শুধুমাত্র কাজের খতিয়ান নয়, এবারে মারন ভাইরাসটিও ভোটের প্রচারের একটা বড় মাধ্যম হিসেবে উঠে এসেছে।

Related Articles

Back to top button