কলকাতানিউজরাজ্য

৭ মাসের শিশু পুত্রকে রাস্তায় ফেলে পালানোর চেষ্টা করলেন বাবা, ঘটনায় চাঞ্চল্য খাস কলকাতায়

জিজ্ঞাসাবাদের পর জানা গিয়েছে কাঁকুড়গাছি বাসিন্দা অনির্বান মুখার্জী করোনা আক্রান্ত হবার পরে মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েছিলেন

×
Advertisement

বৃহস্পতিবার ‘করোনা আক্রান্ত’, খবর পাওয়া মাত্রই নিজের কোলের ৭ মাসের শিশুকে এলগিন রোডের একটি জায়গায় ফেলে রেখে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলেন এক ব্যক্তি। কাকুরগাছির বাসিন্দা অনির্বাণ মুখার্জি নামের এক ব্যক্তি গতকাল করোনা আক্রান্ত হয়েছেন শুনে মানসিকভাবে অত্যন্ত ভেঙে পড়েন। তার পরেই তিনি তার কোলের শিশুকে ৭, এলগিন রোডে ছেড়ে রেখে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।

Advertisement

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, মাস সাতেকের ওই শিশুপুত্রকে নিয়ে রাস্তায় বসে থাকতে দেখা গেছিল ওই ব্যক্তিকে। পথচলতি মানুষকে ঐ শিশুটি নিয়ে নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছিলেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে প্রত্যক্ষদর্শীরা এলাকার স্থানীয় কাউন্সিলর অসীম বসুর সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তার পরেই তিনি ওই শিশুটিকে উদ্ধার করেন। সঙ্গে সঙ্গেই খবর দেওয়া হয় ভবানীপুর থানায়।

অসীম বসুর ফেসবুক লাইভ থেকে দেখা যাচ্ছে, ওই ব্যক্তি সকাল সাড়ে ১০ টা নাগাদ এলগিন রোডের ওই বাড়ির কাছাকাছি আসেন। তারপর ওই ব্যক্তি নিজেকে জয়দীপ সেন হিসেবে পরিচয় দিতে থাকেন। পাশাপাশি জানা যায় স্থানীয় বাসিন্দাদের তিনি নিজেকে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী বলে পরিচয় দিয়েছিলেন। কিন্তু ঠিকানা তিনি কোনোভাবেই বলতে রাজি ছিলেন না। তিনি নিজে মাটিতে শুয়ে ছিলেন এবং তার পাশে বসে ছিল ওই শিশুপুত্র।

Advertisement

পরনে সাদা জামা এবং গলায় সোনার চেন ছিল তার। পরবর্তীকালে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে জানা যায় ওই ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত। এই কারণেই তিনি মানসিক স্থিতি হারিয়ে ফেলে শিশুটিকে অন্য কারোর কাছে ছেড়ে যাওয়ার জন্য আবেদন জানাচ্ছিলেন। অসীম বাবু তার ফোন নম্বর নিয়ে জানিয়েছেন, ওই ব্যক্তি আপাতদৃষ্টিতে মানসিক ভারসাম্যহীন।

অন্যদিকে কাউন্সিলর অসীম বসু বলেছেন, আপাতত ঐ শিশুটি তার মায়ের কাছে আছে। পরিবার সূত্রে খবর, অনির্বাণবাবু নিজে করোনা আক্রান্ত হওয়ার পরেই মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছিলেন। তাই ৭ মাসের ওই পুত্রকে তিনি অন্য কারও হাতে তুলে দিতে চেয়েছিলেন। অসীম বাবু বলেছেন, ওই করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পরিবার সূত্রে জানা যাচ্ছে, অনির্বাণবাবু নিজে একজন তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থায় চাকরি করেন। তিনি নিজে একজন অত্যন্ত মেধাবী ছাত্র ছিলেন। কিন্তু করোনা আক্রান্ত হবার পরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ছেলেকে নিয়ে তিনি গাড়ি চালিয়ে বেরিয়ে যান। তারপর রাত অব্দি বাড়ি না ফেরায় পুলিশে মিসিং ডায়েরি করা হয়। তবে জানা গিয়েছে তিনি আবার রাত্রিবেলা বাড়ি ফিরে এসেছিলেন। পুনরায় শুক্রবার সকাল নাগাদ তিনি বেরিয়ে পড়েন তার গাড়ি নিয়ে। এলগিন রোডে কোথাও একটা তিনি তার গাড়ি পার্ক করে এসেছেন। তার পরেই তার কোলের শিশু পুত্রকে নিয়ে ঘটালেন এই কান্ড। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে নেট দুনিয়ায়। পাশাপাশি করোনা কিভাবে মানুষের মনে ভীতি সঞ্চার করেছে সেটা স্পষ্ট অনির্বাণ বাবুর কান্ড থেকেই।

Related Articles

Back to top button