পলিটিক্সনিউজরাজ্য

চাকরি পেতে হলে দিতে হবে টাকা, ভাইরাল অডিও ক্লিপে শুরু হলো রাজনৈতিক তরজা

পশ্চিম বর্ধমান মহিলা জেলা তৃণমূল সভাপতি মিনতি হাজরার দিকে নিশানা করেছেন বিরোধীরা

×
Advertisement

এসএসসি দুর্নীতির মধ্যেই এবারে দুই মহিলার কথোপকথনের অডিও ক্লিপ ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়াতে। এই অডিও ক্লিপে শোনা যাচ্ছে একজন মহিলা অন্য আরেকজন মহিলাকে বলছেন, ”টাকা ছাড়া কোন কাজ হয় না। আর কাজ না হলে টাকা ফেরত দেওয়া হয়।” সম্প্রতি এই অডিও ক্লিপ সামনে আসার পরই রাজনৈতিক তরজা তুঙ্গে। বিরোধীরা দাবি করেছেন যে মহিলা এই কথা বলছেন তিনি আসলে একজন তৃণমূল নেত্রী।

Advertisement

অডিও ক্লিপে একজন মহিলা অন্যজনকে মিনতি দি বলে সম্বোধন করেছেন। ১৬ মিনিট ২২ সেকেন্ডের এই অডিও ক্লিপে মিনতি’দি নামের ওই মহিলা অন্য আরেকজন মহিলাকে বলছেন, ‘জমি থেকে শুরু করে অঙ্গনওয়াড়ি চাকরি বা সরকারি চাকরি সব ক্ষেত্রেই টাকা না দিলে কোন কাজ হয় না।’ ওই মহিলাকে তিনি আরো বলেন, তিনি নিজের হাতে টাকা নেন না তবে কাজ না হলে সেই টাকা ফেরত দেওয়া হবে আগামী ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে। শুধু তাই নয়, ওই অডিও ক্লিপে মহিলাকে আরো বলতে শোনা যায়, ‘যারা কাজ করার জন্য টাকা নিয়েছেন তাদের কথা আমি চন্দ্রিমা দি কে বলেছি। চন্দ্রিমাদি তাকে দ্রুত টাকা ফেরত দিতে বলেছেন।’

এই নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। বিজেপির দাবি, যাকে মিনতি দি বলে সম্বোধন করা হয়েছে তিনি হলেন পশ্চিম বর্ধমান জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ তথা জেলা মহিলা তৃণমূল সভানেত্রী মিনতি হাজরা। অন্যদিকে যাকে চন্দ্রিমাদী বলা হচ্ছে তিনি রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য হতে পারেন। এ বিষয়ে পশ্চিম বর্ধমানের সিপিএম নেতা পার্থ মুখোপাধ্যায় দাবি করেছেন, রাজ্যে চাকরি পেতে গেলে যে টাকা দিতে হয় এই অডিও হল তার প্রমান।

Advertisement

যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মিনতি হাজরা। তিনি বলেছেন, ‘আমার গলা নকল করে এই ক্লিপ ছড়ানো হয়েছে। দুর্গাপুরের একজন মহিলা এই ষড়যন্ত্র করেছেন।’ অন্যদিকে রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য বলেছেন, ‘ আমি কিছুই জানিনা। আমার এ ব্যাপারে কিছু বলার নেই।’

Related Articles

Back to top button