নিউজবলিউডবিনোদন

‘জীবনের প্রথম ভালোবাসা’র জন্মদিনে আদুরে শুভেচ্ছা বিশ্বসুন্দরী সুস্মিতার



২৭ বছর আগে সকলকে হারিয়ে তিনি হয়েছিলেন বিশ্ব ব্রহ্মাণ্ডের শ্রেষ্ঠ সুন্দরী। হ্যাঁ আমি বঙ্গ তনয়া সুস্মিতা সেনের কথা বলছি। তারপর কেটে গিয়েছে অনেকগুলি বছর। জীবনেও অনেক বদল এসেছে। জীবনে নানান চড়াই উৎরাইয়ের মধ্যে যেতে হয়েছে। বেশ কয়েকবার প্রেমেও পড়েছেন আবার বিচ্ছেদও হয়েছে অভিনেত্রীর। প্রথাগত ছক ভেঙে নিজের শর্তে বাঁচতে ভালোবাসেন তিনি।

২৬ বছর বয়সেই অবিবাহিত অবস্থায় প্রথম সন্তানের মা হয়েছেন। ২০০০ সালে প্রথমে দত্তক নিয়েছেন বড় মেয়ে রেনেকে। তারপর ২০১০ সালে দত্তক নেন ছোট মেয়ে আলিশাকে। দুই মেয়ের সিঙ্গেক মা তিনি। সব কিছুর মধ্যে আগলে রেখে বড় করেছেন দুই মেয়েকে। সেখানেও তিনি স্বতন্ত্র। তাঁর জীবনে ভালোবাসার মানুষের পরিবর্তন ঘটেছে। তবে জীবনের প্রথম ভালোবাসা বদলায়নি। একা হাতে দুই মেয়েকে নিজের হাতে মানুষ করে চলেছেন প্রাক্তন মিস ইউনিভার্স।

আর আজ সেই প্রথম ভালোবাসা অর্থাৎ বড় কন্যা রেনের জন্মদিন। একদিকে যেমন প্রথম ভালোবাসা অন্যদিকে রেনে তাঁর কাছে ইউনিভার্সও। আজ তাঁর ইউনিভার্স দেখতে দেখতে বাইশ বছরে পা দিলেন। সেই কারণেই ইনস্টাগ্রামে রেনের কয়েকটা সুন্দর ছবি পোস্ট করেছেন সুস্মিতা। সঙ্গে লিখেছেন, ” হ্যাপি বার্থ ডে আমার প্রথম প্রেম-ভালোবাসা রেনে। এখন আমরা ২২-এ, কীভাবে সময় কেটে যায়। দুই দশক চলে গেল। ঈশ্বর সবসময় তোমাকে আশীর্বাদ করুক। তোমার সব ইচ্ছাপূরণ করুক। আমরা তোমাকে খুব ভালোবাসি সোনা। মা এবং আলিশার তরফ থেকে অনেক অনেক আদর, ভালোবাসা এবং চুমু”।

সুস্মিতার শেয়ার করা দুইটি ছবির একটিতে দেখা যাচ্ছে রেনে একদৃষ্টিতে তাকিয়ে পোজ দিচ্ছে। আর অন্য একটিতে মন খুলে হাসছে। প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই ছোট মেয়ে আলিশার জন্মদিনে তাঁকে একটি ভিডিও পোস্টের মাধ্যমে উইশ করেন তিনি। উল্লেখ্য,
গত বছর বলিউডে অভিষেক করেছেন সুস্মিতা সেনের বড় কন্যে রেনে। তবে কোনো সিনেমা না ওয়েব সিরিজের হাত ধরে বলিউডে পা রেখেছেন তিনি। পরিচালক কবীর খুরানাও পরিচালিত সুতাবাজি নামক হিন্দী স্বল্প দৈঘ্যের চিত্রনাট্য দিয়ে বলিউডে পা রেখেছেন রেনে। মা-মেয়ের সম্পর্কের সমীকরণের উপর নির্ভর করেই বানানো হয়েছে এই ছবি।

Related Articles

Back to top button