বলিউডবিনোদন

Sidharth Shukla: ছেলের শেষবিদায় মায়ের চোখে জল! শেষকৃত্যে অঝোরে কান্না শেহনাজের



স্বামী চলে গিয়েছেন বহু আগেই, বৃহস্পতিবার সকালে ছেলেও চলে গেলেন। মা ও দুই দিদি একা রেখেই চুপিসারে বিদায় নেন সিদ্ধার্থ শুক্লা। বুধবার রাত ৮টা নাগাদ মা রীতা শুক্লার সঙ্গে নিজের আবাসনেই হাঁটতে বেরিয়েছিলেন অভিনেতা সিদ্ধার্থ। এরই মাঝে হঠাৎই শরীর খারাপ লাগে তাঁর। সঙ্গে সঙ্গেই সিদ্ধার্থ ও রীতা শুক্লা ফ্ল্যাটে ফিরে যান। কিন্তু তখনও তিনি জানতেননা এই হাঁটা ছিল তাঁদের শেষ হাঁটা। এভাবে ফাঁকি দিয়ে চলে যাবে।

ওশিওয়ারা শ্মশানে শুক্রবার সম্পন্ন হচ্ছে সিদ্ধার্থ শুক্লর শেষকৃত্য। শুক্রবার একপ্রকার বুকে পাথর চাপা দিয়েই একমাত্র ছেলের ওশিওয়ারা শ্মশানে শেষকৃত্যে হাজির হয়েছিলেন অভিনেতা সিদ্ধার্থ শুক্লার মা রীতা শুক্লা। এভাবে ছেলের মৃত্যু কোন মাই মেনে নিতে পারেনা ব্যতিক্রম রীতা নন। কান্নায় ছেলেকে শেষ বিদায় জানালেন রীতা দেবী। সেই ছবি উঠে এসেছে সোশ্যাল মিডিয়ার ভিডিয়োতে।

৪০ বছরের তরুণ অভিনেতার এই মৃত্যু মেনে নিতে পারছেননা টিনসেল শহর। বাড়ি ফেরা হয়নি আর সিদ্ধার্থের, কুপার হাসপাতালের মর্গ থেকে সোজা শ্মশানে নিয়ে যাওয়া হয় অভিনেতার দেহ। এদিন সিদ্ধার্থ শুক্লার পরিবার, প্রিয়জন আর ভক্তদের চোখের জলে শেষ বিদায় নিলেন বিগ বস ১৩’র বিজেতা। বৃষ্টিভেজা দুপুরে পঞ্চভূতে লীন হলেন অভিনেতা।

এই দিন অসুস্থ হয়ে পড়লেও শুক্রবার মনের মানুষকে শেষবিদায় জানাতে এদিন ওশিওয়াড়া মহাশ্মশানে হাজির হলেন শেহনাজ গিল। এই দিন সিদ্ধার্থের মৃত্যুর পর প্রথমবার অভিনেত্রীকে দেখা গেল পাপারিজ্জদের এইদিন সাদা-লাল প্রিন্টেট সালোয়ার কমিজে দেখা মিলল অভিনেত্রী। চোখে জল এলোমেলো চুল পুরোপুরি বিধ্বস্ত অবস্থায় শেহনাজ। যাওয়ার পথে গাড়িতে বসেও ফুঁপিয়ে ফুঁপিয়ে কাঁদতে দেখা গেল শেহনাজকে। ব্যাপক পুলিশি পাহারার মধ্যে এদিন ওড়িওয়াড়া শ্মশানে প্রবেশ করেন শেহনাজ। তাঁর সঙ্গে ছিলেন দাদা শেহবাজ। কথা বলার মতো অবস্থায় নেই অভিনেত্রী।


  
এদিন ওশিওয়াড়া মহাশ্মশানে প্রিয় সহকর্মীর শেষ সময়ে উপস্থিত ছিলেন পরিবার ও কাছের বন্ধু। তাঁদে উপস্থিতিতে, করোনাবিধি মেনে সম্পন্ন হল সিদ্ধার্থের শেষকৃত্য। এদিন শ্মশানে পৌঁছেছিলেন জান কুমার শানু,শেফারি জরিওয়ালা,আরতি সিং,জসমিন ভসিন,আলি গোনি, আসিম রিয়াজ,রেশমি দেশাই, মহিরা খান,পরশ ছাবরা। এছাড়া এদিন ওশিওয়াড়া মহাশ্মশানের বাইরে ছিল সিদ্ধার্থের অনুরাগীর ভিড়। করোনার জন্য এই ভিড় সামাল দিতে হিমসিম খেতে হয়েছে মুম্বই পুলিশকে।

Related Articles

Back to top button