নিউজরাজ্য

কম খরচে অত্যাধুনিক অক্সিজেন কনসেনট্রেটর তৈরি করে তাক লাগালেন বাংলার অধ্যাপক

এনআইটি দুর্গাপুরের অধ্যাপক শিবেন্দু শেখর রায় তৈরি করে ফেলেছেন নতুন অক্সিজেন কনসেনট্রেটর প্রাণায়াম

×
Advertisement

করোনায় দেহের অক্সিজেন লেভেল কমে যাচ্ছে, এবারে আপনার সাহায্য করবে প্রাণায়াম। অনেকেই ভাবতে পারেন, এটা কোনো যোগ ব্যায়ামের নাম। তখন চিন্তা আসে, যখন অক্সিজেন লেভেল নেমে গিয়ে লোকে ছটফট করছে, সেই সময়ে যোগ ব্যায়াম! তবে না, এক্ষেত্রে এই প্রাণায়াম কোনো যোগ ব্যায়াম না, বরং এটি একটি অক্সিজেন কনসেনট্রেটরের নাম, এবং এটি তৈরি করেছেন দুর্গাপুরের এক অধ্যাপক। এনআইটি দুর্গাপুরের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এর অধ্যাপক শিবেন্দুশেখর রায় একেবারে দেশীয় পদ্ধতি ব্যবহার করে কম খরচের মধ্যে বহনযোগ্য একটি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর তৈরি করে ফেলেছেন।

Advertisement

তিনি বলছেন, “মোটামুটি ৩০ হাজার টাকার মধ্যে এই মেশিন বাজারে নিয়ে আসা যেতে পারে।” এই মুহূর্তে অক্সিজেন কনসেনট্রেটর সবথেকে প্রয়োজনীয় কিছু জিনিসের মধ্যে একটি হয়ে উঠেছে। তবে এই জিনিসটির দাম এতটা বেশি যে সকল এটি কিনতে পারে না। তাই সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে এই যন্ত্রটি। শিবেন্দু শেখর জানিয়েছেন, তার নিজের পদ্ধতিতে তৈরি এই অক্সিজেন কনসেনট্রেটর চিকিৎসকের পরামর্শমতো রোগীর প্রয়োজনে ব্যবহার করা যাবে।

রেগুলেটর ঘুরিয়ে এই জিনিসটি খুব সহজে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন সকলে। এছাড়াও মাত্র ৩ থেকে ৫ মিনিটের মধ্যে ৯২ থেকে ৯৪ শতাংশ অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারবে তার নতুন আবিষ্কৃত এই অক্সিজেন কনসেনট্রেটর। বিদেশ থেকে যে সমস্ত অক্সিজেন কনসেনট্রেটর আমদানি করা হচ্ছে তার থেকে অর্ধেক দামে আপনারা এই জিনিসটি পেয়ে যাবেন। তার পাশাপাশি যারা কিনতে পারবেন না তারা শীবেন্দুশেখর এর প্রাণায়াম ভাড়া নিয়েও কাজ চালাতে পারবেন। ব্যাটারি এবং বিদ্যুৎ দুই এর উপরেই এই মেশিন চলবে।

Advertisement

গত বছর থেকেই এই মেশিনটি তৈরি করার পরিকল্পনা নিয়েছেন এই বিজ্ঞানী। হাওড়ার সঞ্জীবনী হাসপাতালে এই মেশিনটি ব্যবহার করা হচ্ছে বলে তিনি জানিয়েছেন। এছাড়াও তিনি বলেছেন মুম্বাই, ব্যাঙ্গালোরের বেশ কয়েকটি সংস্থা এই ধরনের অক্সিজেন কনসেনট্রেটর প্রযুক্তি কেনার জন্য আবেদন জানিয়েছে। শিবেন্দু জানিয়েছেন এই মেশিনটি একেবারে ন্যূনতম খরচ এর মধ্যেই আপনাকে অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারে।

Related Articles

Back to top button