নিউজপলিটিক্সরাজ্য

লোহা গরম থাকতে থাকতেই হাতুড়ি মেরে দিন, বিজেপিতে আসার আমন্ত্রণ জানিয়ে শুভেন্দুকে বার্তা সৌমিত্রর

×
Advertisement

নন্দীগ্রাম আন্দোলন নিয়ে বর্তমানে সরগরম রাজ্য রাজনীতি। তৃণমূল থেকে বিজেপি প্রত্যেক রাজনৈতিক দল প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে আক্রমণ করছেন এই ইস্যু নিয়ে। আবারো নন্দীগ্রামে ইস্যু নিয়ে শুভেন্দু অধিকারী সুর সপ্তমে চড়িয়েছেন। আর সেই সময়ে শুভেন্দুকে ভূয়শী প্রশংসা করলেন বিজেপি সাংসদ এবং BJYM এর রাজ্য সভাপতি সৌমিত্র খাঁ। শুভেন্দুর মন্তব্যের রেশ টেনে সৌমিত্র বলেন, শুভেন্দুর থেকে নন্দীগ্রাম আন্দোলন হাইজ্যাক করেছিলেন মমতা ব্যানার্জি।

Advertisement

তারা আরও বক্তব্য, নন্দীগ্রামে তৃণমূল এর কোন আন্দোলন সেভাবে ছিলনা। যা আন্দোলন করেছিল তা ভূমি উচ্ছেদ কমিটি করেছিল। সেই কমিটির নেতা ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। কিন্তু শুভেন্দু অধিকারীর হাত থেকে সমস্ত আন্দোলন নিজের দিকে টেনে নিয়েছিলেন মমতা ব্যানার্জি।

বিজেপিতে আমন্ত্রণ জানিয়ে শুভেন্দু কে উদ্দেশ্য করে সৌমিত্র খাঁ বলেন, ” দাদার প্রতি ভাইয়ের বার্তা। আর দেরী করা ঠিক হবে না। বিহার ভোটের ফল ইতিমধ্যেই প্রকাশ হয়ে গিয়েছে। লোহা গরম থাকতে থাকতেই হাতুড়ি মেরে দিন। না হলে দেরি করলে পিছিয়ে পড়তে হবে।”

Advertisement

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার সকালে নন্দীগ্রামের সভা থেকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে একের পর এক আক্রমণ করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। তার মন্তব্য থেকে স্পষ্ট ছিল, তৃণমূলের সাথে তার সমস্ত সম্পর্ক শেষ। তবে তার রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে এখনো অনেক জল ঘোলা চলছে। অনেকের মন্তব্য তিনি এখনও তৃণমূলে যেতে পারেন। আবার অনেকে বলছেন তিনি বিজেপি যোগ দিতে পারেন। তার মধ্যেই জল্পনা উস্কে দিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী নিজে।

অন্যদিকে শুভেন্দু কে নিয়ে বেশ ধীরে ধীরে এগোচ্ছে বিজেপি। যুবনেতারা শুভেন্দু কে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বিজেপিতে চাইছেন। অন্যদিকে দিলীপ ঘোষ এবং কৈলাস বিজয়বর্গীয় মতো নেতারা বলছেন, ‘ কোয়ালিটি দেখে তবেই বিজেপিতে নেওয়া হবে। ‘ তাই বর্তমানে শুভেন্দু অধিকারী রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে কিছু খোলসা করে বলা যাচ্ছে না।

Related Articles

Back to top button