দেশনিউজ

অভিষেকের গাড়িতে হামলার ঘটনায় অবশেষে মুখ খুলল বিজেপি, কি জানালেন শমিক?

অভিষেকের গাড়িতে লাঠির আঘাত অত্যন্ত নিন্দনীয় ঘটনা, এটা বিজেপির সংস্কৃতির সাথে মিল খায় না, দোষ স্বীকার শমিকের

×
Advertisement

ত্রিপুরায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের গাড়িতে হামলা করার প্রসঙ্গে এবারে অবশেষে মুখ খুলল রাজ্য বিজেপি। আজ একটি সাংবাদিক বৈঠকে বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর গাড়িতে লাঠি দিয়ে হামলাকে অত্যন্ত অনভিপ্রেত এবং নিন্দনীয় বলে মন্তব্য করলেন। পাশাপাশি, জানিয়ে দিলেন হামলা করা বিজেপির সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যে নেই।

Advertisement

তৃণমূল সাংসদ তথা তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের গাড়িতে হামলা নিয়ে বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য বলেন, “ত্রিপুরায় উনি একটি টুইট করেছেন যা দেখেছি। বিজেপির একটি মিছিলের পাশ দিয়ে ওর গাড়ি যাচ্ছিল। মিছিলের শেষে গাড়ি পৌঁছালে একটি ছেলে ঝান্ডা লাঠি দিয়ে গাড়ির কাঁচে আঘাত করেন। এই ঘটনা নিন্দনীয় এবং অনভিপ্রেত। এটা বিজেপির সংস্কৃতিতে পড়েনা।”

পাশাপাশি শমীক ভট্টাচার্য বলেন, “আইনশৃঙ্খলার অবনতি হতে পারে বা বিশেষকিছু স্পর্শ কাতর এলাকায় ভিন্ন জায়গার মানুষ পৌঁছে গেলে সামাজিক ভারসাম্য নষ্ট হয় অনেক সময়। এই কারণে গো ব্যাক স্লোগান দেওয়া যেতে পারে আটকে দেওয়া যেতে পারে কনভয়। তবে বাঁশ দিয়ে হামলা করা হয়েছে?এই সমস্ত তথ্য আমাদের কাছে নেই। আমরা দলীয় স্তরে ত্রিপুরা নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানতে পেরেছি, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের গাড়ি যখন যাচ্ছিল একটি মিছিলের কারণে দশ পনের মিনিট দেরিতে গন্তব্যে পৌঁছায়। যেতে অসুবিধা হয়েছিল। মিছিল চলে যাওয়ার পরে শেষ মুহূর্তে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের গাড়িতে এই ঘটনা ঘটে। মিছিলের শেষ দিকে একটি ছেলে এই কাজটি করেছিল। এই ঘটনা নিন্দনীয়। তবে এর সঙ্গে বিজেপি জড়িত নয়।”

Advertisement

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আজকে ত্রিপুরায় তৃণমূল সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কনভয় পৌঁছাতে না পৌঁছাতেই স্থানীয় বিজেপি সমর্থকরা তার কনভয় লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে শুরু করে বলে অভিযোগ। এছাড়াও তার গাড়িতে পাশ দিয়ে এবং লাঠি দিয়ে হামলা করা হয় বলে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেছেন। একটি ভিডিও টুইটারে প্রকাশ করে তিনি দেখিয়েছেন কিভাবে বিজেপি সমর্থকরা বিজেপির ফ্ল্যাগ দেখিয়ে অভিষেকের বিরুদ্ধে গো ব্যাক স্লোগান দিচ্ছে এবং তার গাড়িতে হামলা করছে। এই ঘটনা জনসম্মুক্ষে প্রকাশিত হবার পরেই মুখে কুলুপ এঁটেছে ত্রিপুরা বিজেপি। বিজেপির তরফ থেকে তেমন কোনো মন্তব্য শুনতে পাওয়া যায়নি। কিন্তু ত্রিপুরার বিজেপির এক নেতা কে. বর্মন কার্যত এই হামলার ঘটনাকে সমর্থন করে প্রকাশ্যে জানিয়েছেন, ” অভিষেক বা যে কেউ আসুক না কেন কিছু করতে পারবে না।”

Related Articles

Back to top button