টলিউডবিনোদন

Sreemoyee Chattaraj: বাথটবে সাদা টাওয়াল পড়ে জলকেলিতে মত্ত রাধারানী, নেটনাগরিকের প্রশ্ন, ‘ছবিটা কি কাঞ্চনদা তুললেন?’

শ্রীময়ী চট্টরাজ! এই নামটার থেকে অভিনেত্রীকে রাধারাণী নামে ডাকতে বেশি পছন্দ করে দর্শক। এই অভিনেত্রী বেশ কয়েক মাস আগে পেজ থ্রিয়ের শিরোনামে উঠে এসেছিলেন। নেপথ্যে ছিলেন কাঞ্চন মল্লিকের সাথে তাঁর বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক। অবশ্য দুজন নিজেদেরকে ভালো বন্ধু বলেই পরিচিতি দিয়েছেন। তবে কাঞ্চনের স্ত্রী পিঙ্কি এদের শুধু ভালো বন্ধু বলেননি। যতই তর্ক বিতর্ক তৈরি হোক না কেন, শ্রীময়ী নিজের মতো করেই জীবনটাকে সাজিয়ে নিতে চাইছেন। যদিও সেসব এখন পুরো অতীত।

সব পুরোনো বিতর্ককে পেছনে ফেলে নতুন ভাবে নিজের জীবন শুরু করেছেন শ্রীময়ী। এখন তাঁকে দেখলে ‘কৃষ্ণকলি’র দুষ্টু রাধারাণীর সঙ্গে কোনো বাস্তবিক মিল খুঁজে পাবেন না। দিন যিত যাচ্ছে, রাধারানীর খোলস ছেড়ে বোল্ড লুকে ভাইরাল হচ্ছেন শ্রীময়ী। মাস কয়েক আগে লাদাখ থেকে ঘুরে এসেছেন কলকাতাতে। ফের সোশ্যাল মিডিয়াতে ঝড় তুললেন অভিনেত্রী৷ তবে এবার ট্রোলডও হলেন অভিনেত্রী। কিন্তু কেন?

কিছুদিন আগে নিজের বাথটাবের জলে প্রিয়জনের সঙ্গে মুহূর্ত যাপন করছিলেন শ্রীময়ী। সৌজন‍্যে, তাঁর শেয়ার করা নতুন ছবি। শেয়ার করা ছবিতে দেখা যাচ্ছে বাথটবের জলে সাদা টাওয়াল পড়ে জলকেলিতে মেতেছিলেন অভিনেত্রী। পুরনো সব বিতর্ক ভুলে নতুন ভাবে মোহময়ী আর লাস‍্যময়ী আন্দাজে ধরা দিয়েছেন অভিনেত্রী। এদিন এই সাজে ছবি পোস্ট করেন সোশ‍্যাল মিডিয়ার হ্যান্ডেলে সকল অনুরাগীদের এক্কেবারে চমকে দিলেন। কখনো নিজের উজ্জ্বল হাসিতে জল ছিটাচ্ছেন, আবার কখনো দুষ্টু হাসিতে লেন্সের দিকে তাকিয়ে পোজ দিচ্ছেন। বাথটবে অবশ্য তাঁর সঙ্গী হয়েছেন প্রিয় বান্ধবী।

তবে এই ছবি শেয়ারের পর অভিনেত্রীর কমেন্ট বক্সে এসেছে একাধিক কটাক্ষ। একজন নেটিজেন সুপারহিট ট্রেন্ডিং হিন্দি গানের লাইন তুলে লিখেছেন ‘ম‍্যায় পানি পানি হো গয়ি’। আবার আরেকজনের প্রশ্ন, ‘ক‍্যামেরায় কে ছিল? কাঞ্চন দা বুঝি’ তবে শ্রীময়ী বরাবরের মতোই এবারেও চুপ থাকা শ্রেয় মনে করেছেন।

উল্লেখ্য, এবছর দুর্গাপুজোর সময়েও কাঞ্চনের সঙ্গে ফ্রেমবন্দী হয়েছিলেন শ্রীময়ী। নবমীর রাতে দুজনে ম্যাচিং করে ট্র‍্যাডিশনাল সাজে ধরা দেন। এদিন৷ দুজন ঘিয়ে ও লাল কালোর মিশেলে ডিজাইনার শাড়ি, স্লিভলেস ব্লাউজে সেজেছিলেন অভিনেত্রী আর কমেডিয়ান কাঞ্চনকে। এই ছবি শেয়ার করে ক‍্যাপশনে শ্রীময়ী লিখলেন, ‘শারদীয়া শুভেচ্ছা। হাজারো বাধা সত্ত্বেও সুন্দর মুহূর্তগুলোকে বন্দি করে স্মৃতি বানানো বন্ধ করিনি আমরা। তাই প্রত‍্যেক বছরের মতো ছবি তোলা জরুরি।’

Related Articles

Back to top button