নিউজপলিটিক্সরাজ্য

টার্গেট বাংলা! এবছর সর্বশক্তি দিয়ে বাংলা দখলের জন্য ঝাঁপাচ্ছে মোদি শাহের BJP

Advertisement

বিজেপির এবছরে বাংলায় টার্গেট ২০০টি আসন জয় এবং এই টার্গেটকে পূরণ করতে এবারে একেবারে রণংদেহি মূর্তিতে অবতীর্ণ হতে চলেছে বঙ্গ বিজেপি ব্রিগেড। বাংলা জয় এখন ভারতীয় জনতা পার্টির সবথেকে বড় টার্গেট। কিছুদিনের মধ্যেই তারা বাংলায় তাদের মেগা শো এর পরিকল্পনা করতে চলেছে। এই শোতে একাধিক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সহ আরো অনেকে যোগদান করতে চলেছেন। শুধু মেগা শো না, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহ ভোটের আগে বাংলায় অনেকগুলি সভা করবেন বলেও জানা যাচ্ছে।

এবার জয়ের লক্ষ্যে সর্বশক্তি নিয়ে অবতীর্ণ হতে চলেছে বিজেপি। ইতিমধ্যেই অমিত শাহ আগামী বিধানসভা ভোটে ২০০ আসন জেতার টার্গেট ফিক্স করে গেছেন। গতবার ২০১৯ লোকসভায় তিনি বলেছিলেন ২২টি আসন পাবে বিজেপি, পেয়েছিল ১৮। এবারে তার টার্গেট ২০০, কিন্তু তার আশা এবারের নির্বাচনে বিজেপির আসন সংখ্যা ২০০ পার করবেই। আর এই লক্ষ্যেই এখন সর্বশক্তি দিয়ে নামছে বিজেপি। তৈরি করা হয়েছে ৬ হাজার স্কোয়ার ফুটের ৪ তোলা ওয়্যার হাউস।

পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়াতে প্রচার এর জন্য ডেকে আনা হয়েছে বিজেপির কেন্দ্রীয় সহ পর্যবেক্ষক এবং আইটি সেলের প্রধান অমিত মালব্যকে। প্রত্যেকটি জেলাকে ভাগ করা হয়েছে ৫টি জোনে এবং এই ৫ জোনের সকলের সঙ্গে ১৮,১৯ এবং ২০ নভেম্বর বৈঠক হতে চলেছে। এই বৈঠকে দলের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে আলোচনা করা হবে। পাশাপাশি এই বৈঠকের রিপোর্ট পৌঁছাবে জেপি নাড্ডার কাছে। অমিত শাহের কাছেও এই রিপোর্ট যাবে। চলতি মাসে আবারো রাজ্যে আসতে পারেন নাড্ডা সহ আরো অনেকে।

জানিয়ে রাখি, ২০১৯ লোকসভা ভোটের সময়ে বাংলায় ১৮ টির কাছাকছি সভা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। এবারে টার্গেট আরো বেশি। তাই ওয়াকিবহাল মহলের দাবি, মোদি হাওয়াকে কাজে লাগানোর জন্য তিনি এ বছর আরো বেশি সভা করতে বলেছেন। ব্র্যান্ড মোদি জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগানোর পূর্ণ চেষ্টা করবেন মোদি, অমিত শাহেরা। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা বাংলায় এসে লাগাতার সভা করবেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আরো বেশি সভা করতে পারেন বাংলাতে এবছর। তার সাথে পাল্লা দিয়ে অমিত শাহও সভা করবেন বাংলায়। সভার পাশাপাশি অনেক সাংগঠনিক দায়িত্ব সামলাবেন তারা। তবে শুধুমাত্র সভায় ঝড় তোলা না, এবারে তাদের অস্ত্র সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মও। সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে মমতা সরকারের নানা দিক খুঁটিয়ে দেখানো এবং তার পর্যালোচনা করে সরকারের খারাপ দিকগুলো তুলে ধরা হতে চলেছে বিজেপির অন্যতম প্রধান কৌশল।

Tags

Related Articles

Back to top button