×
নিউজপলিটিক্সরাজ্য

বিনয় বনাম বিমল! পাহাড় রাজনীতির রাশ কার হাতে থাকবে?

Advertisement

পাহাড় রাজনীতিতে আবার নয়া মোড় এসেছে বিনয় বিমল দ্বন্দ্বকে কেন্দ্র করে। ঠিক ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিমল গুরুং ৩ বছরের অজ্ঞাতবাস কাটিয়ে পাহাড় রাজনীতিতে আধিপত্য কায়েম করার চেষ্টা করছে। অন্যদিকে বিনয় তামাং, অনীত থাপারা পাহাড় রাজনীতি থেকে এক চুল জমিও ছাড়বে না। এই নিয়ে বিনয় তামাং গতকাল নবান্নে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে বৈঠক করেন।

Advertisement

বিমল গুরুংয়ের প্রত্যাবর্তনে যে চাপা উত্তেজনা তৈরী হয়েছিল বিনয় তামাং শিবিরে, মঙ্গলবার নবান্নের বৈঠকে তার অনেকটাই সামাল দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বিনয় তামাং এর অনেকগুলো দাবি মেনে নিয়েছেন। এর ফলে পাহাড় রাজনীতিতে বিনয়দের জমি অনেকটা শক্ত হবে বলেই জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। গতকালের বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী এবং বিনয় অনীত ছাড়াও হাজির ছিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস, ফিরহাদ হাকিম, মুখ্য সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় এবং জিটিএ র প্রধান সচিব সুরেন্দ্র গুপ্ত। প্রায় ৫০ মিনিট বৈঠক হয় তাদের মধ্যে।

বৈঠকের পর বিনয় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হলে তিনি বিদ্রূপের সুরে বিমলকে আক্রমণ করে জানান, ‘কে বিমল গুরুং? আমাদের সিলেবাসে ওই নামটাই নেই!’ তিনি আরো বলেন, বিমলের নামে ১৬০ টি মামলা আছে। কোর্ট তাকে অপরাধী বলে। তিনি বিমল গুরুংকে পাহাড় রাজনীতির ক্লোজড চ্যাপ্টার বলে অভিহিত করেছেন।

Advertisement

অন্যদিকে, প্রত্যাবর্তনের পর গুরুং বলেছেন তিনি মমতা সরকারের নেতৃত্বে পাহাড় জয় করবেন। তারপর থেকেই দফায় দফায় পাহাড়ে মিছিল করছে তামাং সমর্থকরা। এদিনও তামাং যখন নব্বানে বৈঠক করছেন, তখন দার্জিলিংয়ে গুরুং-গো-ব্যাক স্লোগানে দিয়েছেন জিটিএ সমর্থকদের একাংশ। ভোটের মুখে পাহাড় রাজনীতি এখন যথেষ্ট সরগরম। আসলে পুরোটাই ক্ষমতা দখলের লড়াই। পাহাড় রাজনীতির রাশ কার হাতে থাকবে, সেটাই দেখার।

Related Articles

Back to top button