বলিউডবিনোদন

Urfi Javed: প্যান্ট খুলে, জিভ বের করে ‘অশ্লীল’ ইঙ্গিত উরফি জাভেদের; অফার এল নীল ছবির

বিগ বস ওটিটি’ দিয়ে এখন সকলের মধ্যে জনপ্রিয় নাম হয়ে উঠেছেন মিস উরফি জাভেদ। বিগ বসের ওটিটিতে প্রথম এলিমিনেট হলেও তিনি এখন ‘হ্যাপি গো লাকি’ মানুষ হিসেবেই বেশি পরিচিত সকলের কাছে। লোকের কথা না চিন্তা করে যখন মন চায় তখন নিজের মতো করে পছন্দের পোশাক পরেন। আর এই নিয়ে অনেক বিতর্ক তৈরি হয়। তবে সময় মতো সব বিতর্কে মনের মতো জবাব দেন। আর ট্রোলারদের ভাবনাচিন্তা করার কোনো ধার ধারেন না তিনি। তবে ইতিমধ্যে এই অভিনেত্রীকে নিয়ে ইন্টারনেট দুনিয়াতে নানান বিতর্ক তৈরী হয়েছে।

তবে বেশিরভাগ বিতর্কের যোগসূত্র হল অভিনেত্রীর উদ্ভট পোশাক। সমালোচকদের মতে, উরফি নাকি নিজের শরীরে কোনো অন্তর্বাস রাখতে পছন্দ করেন না ঠিক বোল্ড অভিনেত্রী পূনম পাণ্ডের মতোই। আবার কখনও নিজের গায়ে শুধু কাপড় জড়িয়ে রাস্তার মাঝে বেরিয়ে পড়েন। খবরের শিরোনামে থাকতে অতি সামান্য পোশাক পড়ে একের পর এক বোল্ড ফোটোশ্যুট করতেও বেশ পছন্দ করেন এই অভিনেত্রী।

আরো পড়ুন :  মেকআপ ম্যানের ওপর রেগে চিৎকার করে সরিয়ে দিলেন বিগ বি, নেটদুনিয়ায় তুমুল ভাইরাল ভিডিও

সম্প্রতি মিস জাভেদকে দেখা গেল গোলাপি রঙের স্পোর্টস ব্রা তে। আর তার সঙ্গে পরা ট্রাউজার। তবে সেই ট্রাউজারের বোতাম আর চেন পুরো খুলেই ছবি তুললেন তিনি। তবে, এবার তাঁর শুধু পোশাক নয় এত সাথে সমালোচনা হল অভিনেত্রীর মুখের অঙ্গভঙ্গি নিয়েও৷ নেটিজেনদের মতে ‘সস্তা পাবলিসিটি’র জন্যই নাকি তিনি এরুপ ফটোসেশান করেন। উরফির এই ছবিতে বেশিরভাগ কমেন্টই ছিল কটাক্ষের সুরে লেখা। বহু নেটিজেনদের মতে তাঁর এই ছবিকে ‘বি গ্রেট ব্লু ফিল্ম’-র সাথেও তুলনা করেছেন। কেউ আবার লিখেছেন, ‘আপনি বরং পর্নস্টার হয়ে যান। তাহলেও একটু টাকার মুখ দেখবেন অন্তত’! আবার অনেকের মতে, উরফির উচিত এই মুহূর্তে নিজের কেরিয়ারের দিকে নজর দেওয়া। কারণ এসব সস্তা পাবলিসিটি করলে খুব তাড়াতাড়ি দর্শক তাঁকে ভুলে যাবে। তবে সে যাই বলুক অভিনেত্রীর এই পোস্ট অন্যবারের মতোই ভাইরাল।

উল্লেখ্য, ২০২১-র শেষে অবসাদ, আত্মহত্যা নিয়ে কথা বলতে এক সংবাদমাধ্যমে উরফি জানিয়েছিলেন, এক সময় তিনি নিজেকে শেষ করে দেওয়ার কথা ভাবতেন। তাঁর মতে ‘ব্যর্থ কেরিয়ার, ব্যর্থ সম্পর্ক, অর্থের অভাব তাঁকে এমন একজন পরাজিত মানুষের বোধ দিত। তাঁর এখনও অনেক টাকা নেই, সফল কেরিয়ারও না এবং তিনি এখনও অবিবাহিত। কিন্তু তাঁর আশা আছে। এটাই তাঁর বেঁচে থাকার একমাত্র কারণ… তাই তিনি কখনো থামেননি। তিনি হাঁটতে থাকছেন এবং এখনও হাঁটছেন। তিনি যেখানে থাকতে চান আর সেখানে হয়তো এখনও পৌঁছননি তবে অন্তত তিনি সেই পথে আছেন’।

Related Articles

Back to top button