বলিউডবিনোদন

‘জীবনের নতুন একটা অধ্যায় শুরু করতে চলেছি’ : আমির-কিরণ



বলিউডের মিস্টার পারফেকশনিস্ট বলা হয় আমির খানকে। আমিরের কেরিয়ারে বহু হিট সিনেমা এসেছে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল লাগান সিনেমা। এই সেটেই প্রথম আলাপ হয় কিরণ রাওয়ের সাথে। ছবিতে আশুতোষ গোয়ারিকরের সহকারী পরিচালক হিসাবে কাজ করছিলেন কিরণ। প্রথম আলাপে ধীরে ধীরে ভালো বন্ধু হয়ে ওঠে এরা দুজন। আমির ও কিরণের সম্পর্ক ভীষণই বন্ধুত্বপূর্ণ ছিল প্রথমে। এরপর ২০০২ সালে আমিরের প্রথম স্ত্রী রিনা দত্তের সাথে বিচ্ছেদ হয়।

সেই সময় অভিনেতা খুবই ডিপ্রেশনে চলে যান। অভিনেতার খারাপ সময়ে আলো হয়ে এসেছিলেন কিরণ। এরপর কিরণের প্রেমে পড়েন আমির। এরপর তিন জন লিভ ইন রিলেশনে আবদ্ধ হন। ২০০৫ সালে ২৮শে ডিসেম্বর বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। এরপর এই জুটির একসাথে পথচলা শুরু হয়৷ ধীরে ধীরে হয়ে ওঠে বলিউডের মোস্ট পারফেক্ট জুটি আমির-কিরণ। ১৫ বছর সুখী দাম্পত্য জীবন বেশ সুখময় ছিল। তবে এর মাঝেই শনিবার সকালে সকলকে চমকে দিলেন আমির কিরণ। দুজনেই যৌথভাবে ঘোষণা করলেন এই সাড়ে পনেরো বছরের দাম্পত্য জীবনের পথচলাতে হঠাৎ করে দাঁড়ি টানলেন।

কিন্তু হঠাৎ করে এই দাঁড়ি টানা কেন? এর উত্তর পাওয়া যায়নি। সোশ্যাল মিডিয়াতে দুজনের দাম্পত্য জীবন নিয়ে এক বিবৃতি পেশ করা হয়েছে। এই বিবৃতিতে স্পষ্ট করে লেখা আছে, ‘এই ১৫ বছরের সুন্দর সফরে তাঁরা দুজনে প্রচুর আনন্দ, উচ্ছ্বাস, অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করেছেন। ভরসা, ভালবাসা এবং শ্রদ্ধার মধ্যে দিয়ে দুজনের সম্পর্ক বিকশিত হয়েছে। এ বার তাঁরা দুজনেই জীবনের নতুন একটা অধ্যায় শুরু করতে চলেছি। কিন্তু স্বামী-স্ত্রী হিসেবে নয়, নিজেদের সন্তানের মা-বাবা এবং একই পরিবারের সদস্য হিসেবে।’

এই বিবৃতিতে আরো লেখেন, তাঁরা যৌথভাবে বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বেশ কিছুদিন আগেই। এবার আনুষ্ঠানিক ভাবে শনিবার সকালে সিদ্ধান্থ ঘোষণা করলেন। আলাদা একটি বৃহত্তর পরিবারের মতোই একে অপরের জীবনযাপন করবেন। আজাদের প্রতিও বাবা মা হিসেবে সমানভাবে দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়া আরো বলা হয়, সিনেমা সহ অন্যান্য প্রজেক্টেও আগের মতো একসাথে কাজ করবেন। তাঁদের এই সিদ্ধান্তে পাশে থাকার জন্য নিজের সকল আত্মীয় ও বন্ধুদের অসংখ্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

শুভানুধ্যায়ীদের কাছে নিজেদের আগামী দিনগুলোর জন্য শুভেচ্ছা কামনা করেছেন। এই বিবাহবিচ্ছেদকে এরা সম্পর্কের সমাপ্তি বলে আখ্যা করেননি বরং দুজনের এক নতুন সফরে পথচলা শুরু বলেছেন। পরিশেষে ধন্যবাদ এবং ভালবাসা সহ — কিরণ এবং আমির লেখা আছে বিবৃতিতে।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালের সারোগেসির মাধ্যমে জন্ম হয় আমির-কিরণের একমাত্র সন্তান আজাদ রাও খানের। পেশাদার জীবন হোক বা ব্যক্তিগত জীবন সব জায়গায় স একে অপরের হাত শক্ত করে ধরে রেখেছেন তাঁরা। কিরণ পরিচালিত একমাত্র ছবি ‘ধোবি ঘাট’-এ অভিনয়ও করেছেন আমির। খুব শীঘ্রই আমির খান লাল সিংহ চাড্ডা ছবিতে করিনা কাপুর খানের সাথে অভিনয় করতে দেখা যাবে।

Related Articles

Back to top button