টেক বার্তা

প্রতি মাসে ১৩,০০০ টাকা সাশ্রয় করে Tata কোম্পানির এই গাড়ি, জানুন এই গাড়ির অত্যাধুনিক ফিচার ও দাম

Tata এই গাড়ির মাধ্যমে আমজনতাকে বেশ লোভনীয় অফার দিচ্ছে

×
Advertisement

ভারতে এখন বৈদ্যুতিক গাড়ির যুগ শুরু হয়েছে। মানুষ এখন পেট্রোলের পরিবর্তে বৈদ্যুতিক গাড়ি কিনতে পছন্দ করছেন। এই গাড়ির একটা ট্রেন্ড শুরু হয়েছে বলতে গেলে। টাটা কয়েক মাস আগে দেশের সবচেয়ে সস্তা ইলেকট্রিক গাড়ি লঞ্চ করেছে। গাড়িটির বিশেষত্ব হল এটি দামে সাশ্রয়ী হওয়ার পাশাপাশি আপনার খরচ ও বাঁচায়। হ্যাঁ! এটি প্রতি মাসে প্রায় ১৩,০০০ টাকা পর্যন্ত বাঁচাতে পারে। সঙ্গেই, সঞ্চিত টাকা দিয়ে সহজেই গাড়ির ইএমআই পরিশোধ করা যায়।

Advertisements
Advertisement

গাড়িটির অন-রোড মূল্য ৯.১৮ লাখ টাকা থেকে ১২.৭১ লাখ টাকা পর্যন্ত এবং এটি ৪টি ভেরিয়েন্টে পাওয়া যায় ভারতের বাজারে। এই গাড়ির নাম Tata Tiago EV। এই ইলেকট্রিক গাড়ির কথা বলতে গেলে প্রথমেই এর রেঞ্জ সম্পর্কে জানা উচিত। এই গাড়িটি ২টি ব্যাটারি প্যাক সহ আসে, যার মধ্যে একটি ছোট অর্থাৎ ১৯.২ kWh ব্যাটারি সহ ২৫০ km পর্যন্ত রেঞ্জ পাওয়া যাবে। পাশাপাশি, আরো একটি অপশন আপনার জন্য রয়েছে। দ্বিতীয় অপশনে, ২৪ kWh এর ব্যাটারির সাথে আপনি ৩১৫ কিমি রেঞ্জ পাবেন। এছাড়াও, গাড়িতে নতুন যুগের সমস্ত বৈশিষ্ট্য পাওয়া যায়, যা আজকের দিনের একটি গাড়িতে থাকা উচিত।

Advertisements

এখন প্রধান প্রশ্ন হলো, কোন মানুষদের এখন এই ইলেকট্রিক গাড়ি কেনা উচিত? কারণ বর্তমানে গাড়ির চার্জিং ফেসিলিটি সর্বত্র পাওয়া যায় না। তাই বলতে গেলে, এই গাড়িটি সেই লোকদের কেনা উচিত যারা দৈনিক ১০০ থেকে ১৫০ কিমি অবধি যাতায়াত করেন। এর অর্থ হল যে, আপনি যদি সারাদিন গাড়ি নিয়ে শহরে ঘোরাঘুরি করেন এবং সন্ধ্যায় বাড়ি ফিরে গাড়ি চার্জিংয়ে রাখেন, তাহলে চিন্তা করার দরকার নেই। তবে, এই গাড়ী দীর্ঘ ভ্রমণের জন্য ব্যবহার করা যাবেনা। তবে, আরেকটি প্রশ্ন নিশ্চই আপনার মাথায় ঘুরছে, যে এই গাড়ি আপনার ১৩,০০০ টাকা বাঁচাবে কীকরে?

Advertisements
Advertisement

ধরুন আপনার কাছে একটি পেট্রোলচালিত গাড়ি আছে, যেটি প্রতি লিটারে ১৫ কিমি মাইলেজ দেয়। আপনি যদি এই গাড়িটি এক বছরে ২০,০০০ কিলোমিটার চালান, তাহলে বর্তমান পেট্রোলের দাম অনুযায়ী আপনার প্রায় ১.৩০ লক্ষ টাকা পেট্রোলে খরচ হবে। অন্যদিকে, Tiago EV-এর জন্য ২০,০০০ কিলোমিটার যেতে খরচ হবে প্রায় ২০,০০০ টাকা। এর মানে আপনি বছরে প্রায় ১ লাখ টাকা বাঁচাতে পারবেন।

দ্বিতীয়ত, Tiago EV-এর সাথে ৮ বছর বা ১.৬০ লক্ষ কিলোমিটারের জন্য ব্যাটারি এবং মোটর ওয়ারেন্টি পাওয়া যায়। গাড়ির ওয়ারেন্টি ৩ বছরের জন্য উপলব্ধ। ধরুন আপনি মাত্র ৮ বছরের জন্য Tiago EV চালালেন, তাহলে ৮ বছরে আপনি প্রায় ৮ লক্ষ টাকা বাঁচাতে পারবেন। এর অর্থ হল, আপনার গাড়ির খরচ প্রায় লাগলোনা বললেই চলে।

এবারে ধরুন আপনি এই গাড়িটি কেনার জন্য ৫ লাখ টাকার অটো লোন নিয়েছেন। মোটামুটিভাবে, এই ধরনের ঋণের জন্য EMI প্রায় ১১,০০০ টাকা হবে। আপনি যদি এটিকে প্রতি মাসে ২,০০০ কিলোমিটার চালান, তাহলে চার্জ করতে প্রায় ২,০০০ টাকা খরচ হবে৷ উভয় খরচ যোগ করা হলে তা মাসে প্রায় ১৩,০০০ টাকা হবে। অন্যদিকে, আপনি যদি একটি পেট্রোলচালিত গাড়ি নেন, তাহলে প্রতি লিটারে ১৫ কিলোমিটার মাইলেজ অনুযায়ী, ২,০০০ কিলোমিটার চালানোর খরচ হবে ১৩,০০০ টাকা। আপনি যদি এর সাথে ১১,০০০ টাকার EMI যোগ করেন, তাহলে এই খরচ হবে ২৪,০০০ টাকা। অর্থাৎ, এটা স্পষ্ট যে আপনি যদি একটি বৈদ্যুতিক গাড়ি চালান, তাহলে আপনি অন্তত পেট্রোলের পুরো খরচটা খরচ বাঁচাতে পারবেন এবং সাথেই স্বচ্ছন্দে গাড়ির EMI পূরণ করতে পারবেন। তাই আর বেশি কিছু চিন্তা না করে সহজ EMI ব্যবস্থায় কিনে নিন Tata Tiago EV, এবং পুরো করুন আপনার গাড়ি কেনার স্বপ্ন।

Related Articles

Back to top button