নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“রাজনৈতিক কারণ সামনে রেখে কৃষকদের বঞ্চিত করছে বাংলার সরকার”, বক্তব্য মোদীর,”কেন্দ্র কিছু করেনি”, পালটা মমতার

Advertisement

বড়দিনে রাজ্য থেকে কেন্দ্রের রাজনীতিতে বৃদ্ধি পেয়েছে উষ্ণতা। নতুন কৃষক বিলকে নিয়ে অভিযোগ এবং তার পালটা অভিযোগে উত্তাল গোটা দেশ। এইদিন সকালে প্রধানমন্ত্রীর আক্রমণ, অন্যদিকে তার পালটা জবাব মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। ‘অর্ধসত্য কথা বলা এবং বিকৃত করে কথা বলে জনসাধারণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেছেন নরেন্দ্র মোদী। কৃষকদের সমস্যার কোনও সমাধান না করে টিভিতে লোক দেখানো উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তিনি।” মোদীর বিরুদ্ধে এমনটাই এইদিন বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বড়দিনের সকালে কৃষকদের উদ্দেশ্যে বার্তা দিয়ে ভার্চুয়াল বৈঠকে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী। নতুন কৃষক আইনের পক্ষে সওয়ালের সাথে সাথে আগাগোড়া মোদীর আক্রমণের নিশানায় থাকতে দেখা গিয়েছে বিরোধীদের। বিশেষ করে,বাংলার সরকারের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম বলে তোপ দাগেন প্রধানমন্ত্রী। তার বক্তব্য,”বাংলার ৭০ লক্ষ কৃষক বছরে ৬,০০০ টাকার কেন্দ্রীয় সাহায্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। রাজনৈতিক কারণকে সামনে রেখে কৃষকদের এই সুবিধা পাওয়া থেকে বঞ্চিত করছে বাংলার সরকার।” ক্ষোভ উগরে দিয়ে এইদিন নরেন্দ্র মোদী বলেন,”রাজ্য সরকারকে এক পয়সাও দিতে হবেনা। পুরোটা দেবে কেন্দ্র। কিন্তু কেবল রাজনৈতিক কারণকে সামনে রেখে রাজি হচ্ছে না পশ্চিমবঙ্গের সরকার। বাংলার অনেক কৃষক এই সাহায্য চেয়ে চিঠিও পাঠিয়েছেন ভারত সরকারকে। অন্যদিকে বাংলার লক্ষ লক্ষ কৃষক আবেদন করেছেন এই সাহায্যের জন্য। তারপরও এই প্রকল্প আটকে রেখেছে বাংলার সরকার।”

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আক্রমণের জবাবে বিবৃতি দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন,”কৃষকদের স্বার্থ সুরক্ষিত করতে সর্বদা তৎপর রাজ্য সরকার। আমি নিজে চিঠি লিখেছি দুই বার। দুই দিন আগে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীর সাথে কথাও বলেছি। কিন্তু পাইনি কোনও সহযোগিতা। তার বদলে রাজনৈতিক ফায়দা তুলতে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।”

মুখ্যমন্ত্রী এইদিন অভিযোগ তুলেছেন কেন্দ্রের বিরুদ্ধে। তার বক্তব্য,”পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে সাহায্যের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার কিছুই করেনি। এখনও কেন্দ্রের থেকে রাজ্যের পাওনা ৮৫ হাজার কোটি টাকা। সত্যিই যদি সাহায্য করতে চান তবে বকেয়া মিটিয়ে দিন।” এইদিন কেন্দ্রের ভূমিকা কেন্দ্রের ভূমিকা পরিপন্থী যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামোর।” এখানেই থামেননি মুখ্যমন্ত্রী। তার বক্তব্য,”আমি মনে প্রাণে রাজ্যের মানুষের জন্য কাজ করি। রাজ্যের মানুষ তার যোগ্য জবাব দেবেন। আর তাছাড়াও রাজ্য সরকার কেন্দ্রের সাথে যৌথভাবে বহু প্রকল্প রূপায়ন করেছে। যেখানে একটা প্রকল্প নিয়ে প্রশ্ন তোলা অবান্তর।”

Tags

Related Articles

Back to top button