টলিউডবিনোদন

গাড়ি দাঁড় করিয়ে যশকে জড়িয়ে ধরে ছবি তুললেন তরুণী, দিলেন ভালোবাসার প্রস্তাব

×
Advertisement

যশ দাশগুপ্ত (yash Dasgupta)এখন অবশ্য অভিনয়ের থেকে বেশি মনোযোগ দিয়েছেন তৃণমূলের সাংসদ ও অভিনেত্রী নুসরত জাহান (nusrat jahan)-এর প্রতি ও ভোটের প্রচারের প্রতি। 17 ই ফেব্রুয়ারি কৈলাস বিজয়বর্গীয়(Kailas vijaybargiya) এবং মুকুল রায় (Mukul Ray)-এর উপস্থিতিতে গেরুয়া শিবিরের পতাকা হাতে তুলে নিয়েছেন যশ। অপরদিকে যশকে সৌজন্যবোধ দেখিয়ে টুইট করে অভিনেতা দেব (Dev) যশকে রাজনীতির জগতে স্বাগত জানিয়ে বলেন, আদর্শগত পার্থক্য থাকলেও যশের প্রতি তাঁর শুভেচ্ছা সবসময় থাকবে। যশ দেবের টুইটের উত্তর দিয়ে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেছেন, আদর্শগত পার্থক্য থাকলেও তাঁদের দুজনের লক্ষ্য মানুষের জন্য কাজ করা।

Advertisement

দেব বরাবর তাঁর সৌজন্যবোধের জন্য বিখ্যাত। কিছুদিন আগেও বিজেপি নেতা সৌমিত্র খাঁ (soumitra khan) তাঁকে হলদিয়ায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী(Narendra modi)-র সভায় আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। কিন্তু দেব সৌমিত্রবাবুকে ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেছিলেন, হলদিয়ার সভায় উপস্থিত থাকা তাঁর পক্ষে সম্ভব হবে না। অপরদিকে যশ বিজেপিতে যোগ দিতেই তাঁকে ট্রোল করা শুরু করেছেন নেটিজেনদের একাংশ। অনেকেই তাঁর নারীসক্তি নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন।

এর মধ্যেই একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে এবং ভাইরাল হতেই রীতিমত বহুলচর্চিত হয়ে গেছে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, যশ সবেমাত্র বাইক নিয়ে বিজেপির প্রচারে একটি পাড়ায় ঢুকেছেন। পাড়ায় ঢুকতেই তাঁর রাস্তা আটকে দাঁড়ালেন এক মহিলা। তিনি দৌড়ে এসে যশকে বললেন, ছবি তুলতেই হবে তাঁর সঙ্গে কারণ তিনি তাঁর আত্মীয়দের হোয়্যাটসঅ্যাপ করবেন। যশ তো এই কথা শুনে ঘাবড়ে গিয়ে একসা। অপরদিকে নিজে মুখে পান গুঁজে, ভয় পেয়ে যাওয়া যশকে ঘাড় ধরে টেনে ছবি তুললেন ওই মহিলা। কিন্তু যশ তো রোবোটিক। মহিলা আগেই জানতেন। তাই যশকে অ্যাঙ্গেলটাও ঠিক করে দিলেন তিনি। অপরদিকে তখন একজন বিজেপি কর্মী আরেক মহিলাকে জিজ্ঞাসা করছেন, তিনি যশকে মালা দেবেন কিনা। উল্টে যশ ঘাবড়ে গিয়ে উত্তর দিয়েছেন, “মালা দেব?”। যশ যখন এই কথা বলছেন, তখন অপরদিকে ছবি তোলা মহিলা চেঁচিয়ে বলছেন, “জিততেই হবে, আই লাভ ইউ”। যশ স্পিচলেস। মানে আনন্দে নয়, ভয়ে আর কি! কি জানি, ওনার হয়তো পঁয়ষট্টি বছরের কোনো ভদ্রমহিলার কথা মনে পড়ে গেল যাঁর পাশে এই সেদিন অবধিও হাসিমুখে দেখা গেছে যশকে। তাছাড়া ভয় পাবারই কথা। গত এক মাস ওয়ার্কআউট না করে যশ প্রায় শুকিয়ে কাঠ এবং ভদ্রমহিলা সেলফি তুলতে এসে ওরকম চেঁচাচ্ছেন, যশ তো ভয় পাবেনই। ভদ্রমহিলার উদ্দেশ্যে একটাই কথা, আপনি প্লিজ চেঁচাবেন না যশের উপর, যশ যদি না জেতেন তাহলে নাহয় সেলফিটা ডিলিট করে দেবেন! ভুল তো মানুষ মাত্রেই হয়। যশের উদ্দেশ্যে একটা কথা বলতেই হবে, এরপরেও যদি যশ ভালো অভিনয় না করেন তাহলে আর কোনো পার্টি নেই যেখানে তিনি প্রার্থী হয়ে দাঁড়ানোর সুযোগ পাবেন। নুসরত ও পুনম বোধ হয় এই ভিডিও দেখে কেঁদে ভাসাচ্ছেন। হতেও তো পারে!

Advertisement

Related Articles

Back to top button