×
বিনোদনবলিউড

এই ওয়েব সিরিজে লজ্জার সমস্ত সীমা অতিক্রম অভিনেত্রী কমলিকা, ভুল করেও পরিবারের সাথে দেখবেন না

২০১৮ সালে মিস টিচার ওয়েব সিরিজের মাধ্যমে অ্যাডাল্ট ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করা শুরু করেন কমলিকা চন্দ্র

Advertisement

বর্তমান সময়ে সিনেমা সিরিয়ালের পাশাপাশি গ্ল্যামার ইন্ডাস্ট্রিতে এক নতুন সংযোজন হয়েছে ওয়েব সিরিজের। আসলে প্রযুক্তির সাথে খাপ খাইয়ে চলতে গিয়ে এখন প্রত্যেকেই ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিভিন্ন ওয়েব সিরিজ দেখতে পছন্দ করেন। এই ডিজিটাল মার্কেটে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় বেশ কিছু অ্যাডাল্ট ওয়েব সিরিজ। উল্লু, প্রাইম শট, কোকু ইত্যাদি জায়গায় প্রায় প্রতিদিন কোনো না কোনো ওয়েব সিরিজ রিলিজ করে। যৌনতায় ভরা ওয়েব সিরিজগুলোর জনপ্রিয়তা কিন্তু কম নয়। প্রত্যেকটি ওয়েব সিরিজ প্রায় লাখ লাখ মানুষ দেখে থাকেন।

Advertisement

অনেক অভিনেত্রী আজকালকার দিনে শুধুমাত্র কিছু ওয়েব সিরিজ করে জনপ্রিয়তার শিখরে পৌঁছে গিয়েছেন। তাদের মধ্যে একজন অন্যতম পরিচিত নামজাদা মডেল-অভিনেত্রী হলেন কমলিকা চন্দ্র। অভিনেত্রী তার ক্যারিয়ারের শুরু বাংলা সিনেমার মধ্য দিয়ে করলেও আজকালকার দিনে বিভিন্ন অ্যাডাল্ট ওয়েব সিরিজে লজ্জার সীমা অতিক্রম করে খোলামেলা দৃশ্যে অভিনয় করতে দেখা যায় কমলিকাকে। উল্লু, কোকু, রাবিট ইত্যাদি জায়গায় ওয়েব সিরিজে অভিনয় করেন তিনি। তাঁর অভিনীত বেশিরভাগ ওয়েব সিরিজ আপনি কখনোই পরিবারের সাথে দেখতে পারবেন না। আজকের ওই প্রতিবেদনে জেনে নিন তার বিখ্যাত কয়েকটি ওয়েব সিরিজের নাম।

২০১৮ সালে মিস টিচার ওয়েব সিরিজের মাধ্যমে অ্যাডাল্ট ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করা শুরু করেন কমলিকা চন্দ্র। এতে অভিনেত্রী একটি কলেজের টিচার এর ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন যার নাম রোজ দে। এই শিক্ষিকা ছিলেন অত্যন্ত সুন্দরী এবং কলেজের টিচার হলেও সকলেই তার উপর ক্রাশ খেয়ে গিয়েছিলেন। এরপর গল্পের শেষ অংশে দেখানো হয় কমলিকা ওরফে টিচার রোজ তার ক্লাসের এক স্টুডেন্ট তানবৈশের সম্পর্ক শুরু করে। এমনকি তাদের সম্পর্ক করায় শারীরিক পর্যায় অব্দি। তবে এরপরেও রয়েছে টুইস্ট। সেই সম্বন্ধে জানতে আপনাকে ওয়েব সিরিজটি অবশ্যই দেখতে হবে।

Advertisement

এছাড়া অ্যাডাল্ট ওয়েব সিরিজ দুনিয়ার বেতাজ বাদশা মাস্ত্ররাম ওয়েব সিরিজের একটি গল্পে বেশ লাস্যময়ী ভঙ্গিতে বোল্ড সিনে অভিনয় করেছেন কমলিকা। প্রধান চরিত্র রাজারামের কামউত্তেজক কল্পনামূলক গল্পে মন্ত্রীর পার্সোনাল অ্যাসিস্ট্যান্ট এর ভূমিকায় দেখা গিয়েছে কমলিকাকে। তবে মন্ত্রী দিনের কাজের পর তার পার্সোনাল অ্যাসিস্ট্যান্ট এর সাথে অফিসের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেন। এই ওয়েব সিরিজে কমলিকার হট ফিগার দেখে রীতিমতো রাতের ঘুম উড়েছে নেটিজেনদের।

এছাড়াও কমলিকা চন্দ্রের অন্য দুই অ্যাডাল্ট ওয়েব সিরিজ হল পাঠশালা ও মাই ডার্লিং। দুটি ওয়েব সিরিজেই লজ্জার সমস্ত সীমা লংঘন করে কামোত্তেজক যৌনতায় মেতে উঠেছেন অভিনেত্রী। এই সমস্ত গল্পের কাহিনী জানতে আপনাকে অবশ্যই ওয়েব সিরিজগুলি দেখে নিতে হবে। তবে আগে থাকতেই সাবধান করে জানায় যে ভুল করেও কমলিকা চন্দ্রের সেই সমস্ত ওয়েব সিরিজ পরিবারের সাথে দেখবেন না। বরং ঘরের দরজা বন্ধ করে একান্তে দেখে ফেলুন উপরিক্ত ওয়েব সিরিজগুলি।

Related Articles

Back to top button