বাংলা সিরিয়ালবিনোদন

তুমুল বিতর্ক দেশের মাটি সিরিয়ালে, নায়িকা ‘নোয়া’কে নিয়ে মুখ খুললেন ‘মাম্পি’

×
Advertisement

নতুন ভাবনা ও মাটির গন্ধ নিয়ে বাংলা টেলিভিশন জগতে ফিরেছিলেন লীনা গঙ্গোপাধ্যায় ও শৈবাল বন্দ্যোপাধ্যায়। এর আগে বড়পর্দায় আদিল হুসেন ও পাওলি দামের সঙ্গে ‘মাটি’ তৈরি করেছেন এই পরিচালকদ্বয়। সেই মাটির গন্ধই এবার তাঁরা ফিরিয়ে এনেছেন ‘দেশের মাটি’তে। দেশের মাটি ধারাবাহিকের মধ্যে আছেন একাধিক নায়ক-নায়িকা, এই যেমন নোয়া-কিয়ান, ডোডো-উজ্জ্বয়িনী, মাম্পি-রাজা, দাদান-ঠাম্মি, জেঠুমণি-বৌরানি। প্রত্যেকের গল্প বলছেন লীনা গঙ্গোপাধ্যায় ও শৈবাল বন্দ্যোপাধ্যায়।

Advertisements
Advertisement

এরই মধ্যে নোয়া-কিয়ান এর জুটি দর্শকরা ভীষণ পছন্দ করতে শুরু করে। নানা ঝঞ্ঝাটের মধ্যে সাতপাকে বাঁধা পড়েন কিয়ান-নোয়া। এদিকে বিয়ের দৃশ্য শেষ হওয়ার আগেই নোয়া ওরফে শ্রুতি করোনা আক্রান্ত হন। এরপর থেকেই গল্প নোয়াকে ছাড়াই পরিবেশিত হয়। গল্পে আসে নতুন মোড়। মাম্পি-রাজা হয়ে ওঠেন গল্পের হিরো হিরোইন। দর্শকরা রাজা-মাম্পি’র রোম্যান্স, কেমিস্ট্রি, বিরহ, রাগ, অভিমান সবকিছুই অনুভব করতে শুরু করেন অন্তর থেকে। রাহুল এমনিতেই একজন ভালো অভিনেতা, কিন্তু উজ্জ্বল হয়ে ওঠেন মাম্পি ওরফে রুকমা। ‘কিরনমালা’র পর মাঝে বেশ কিছুদিন তিনি নেগেটিভ চরিত্রে অভিনয় করেছেন, দ্বিতীয় ইনিংসে এই প্রথম পজিটিভ চরিত্রে অভিনয় করছেন। প্রথম নেগেটিভ করেছিলেন ‘প্রতিদান’-এ। এছাড়াও ‘খড়কুটো’তে নেগেটিভ চরিত্র করেছেন তিনি। সব ধারাবাহিক থেকেই রুকমা তার এক আলাদা পরিচয় করতে পেরেছেন, কিন্তু ‘দেশের মাটি’ ধারাবাহিকের মধ্যে দিয়ে ‘রাজা-মাম্পি’ হয়ে উঠেছেন অনবদ্য। দর্শকরা অনুমান করেই ফেলেছেন যে পর্দার এই জুটি বুঝি সত্যি প্রেম করছেন। যদিও মাম্পি ওরফে রুকমা বলেই দিয়েছেন, কোনো প্রেম নয়, সবটাই লীনা টিমের কৃতিত্ব।

Advertisements

এদিকে নোয়া ওরফে শ্রুতি দাসের পিছন ছাড়ছেন না কিছু নেট জনতা। তারা বারবার বলে চলেছেন দেশের মাটি গল্পে নোয়া কিয়ান আর নেই। তারা আর এই গল্পের নায়ক নায়িকা নন। অবশ্য, এর উত্তর শ্রুতি সোশ্যাল মিডিয়ায় দেন। তার দাবী,‘ওরে অবুঝ, এই ধারাবাহিক তথাকথিত নায়ক-নায়িকা নির্ভর নয়’। এখানে নোয়া-কিয়ান, রাজা-মাম্পি, ডোডো-উজ্জয়িনী, দাদান-ঠাম্মি, জেঠুমণি-বৌরানি সবাই নায়ক-নায়িকা। শ্রুতির হয়ে এবারে মুখ খুললেন মাম্পি ওরফে রুকমা। তিনি জানান,‘শ্রুতি বুদ্ধিমান। আমাদের মধ্যে এত চট করে ভাঙন ধরানো সম্ভব নয়।’

Advertisements
Advertisement

Related Articles

Back to top button