বিনোদনহলিউড

গাছের আকৃতির নেকলেসে আবৃত স্তনযুগল; ছবি দেখে চক্ষু চড়কগাছ নেটিজেনদের



করোনা আবহে প্রতি বছরের মতো এবারও ফ্রেঞ্চ রিভিয়েরা সংলগ্ন সমুদ্র নগরীতে বেশ জাঁকজমক ভাবে আয়োজিত হয়েছে ৭৪ তম কান চলচ্চিত্র উৎসব। শুরুটাই বেশ জমজমাট পরিবেশ৷ এইবছ কান চলচ্চিত্র উৎসবের রেড কার্পেটে নজর কাড়লেন মার্কিন সুপার মডেল বেলা হাদিদ। অন্যবারের মতো কান চলচ্চিত্র উৎসবের শো স্টপার হলেন আরও একবার প্রমাণ করলেন, শুধু র‌্যাম্প নয়, সবক্ষেত্রেই তিনিই শো-স্টপার।

কান চলচ্চিত্র উৎসবে বিগত কয়েক বছর ধরে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করে এসেছে এই মার্কিন সুপার মডেল। তবে অন্যবছরের থেকে এইবার তিনি সবাইকে আরো চমকে দিলেন। এক নিমেষে সবাইকে পিছনে ফেলে দিলেন। বেলা হাদিদের ফ্যাশান সেন্স দেখে অনেকেই শিক্ষা নিচ্ছেন পরের বারের জন্য।

এবারে কান ফেস্টিভ্যাল-এ বেলা হাদিদের পরণে ছিল বিখ্যাত ডিজাইনার এলসা শিয়াপ্যারেলির ডিজাইন করা একটা কালো বডি হাগিং নেকলাইন গাউন। তবে এই গাউনের চেয়ে সবচেয়ে চমকপ্রদ ছিল তার সাজে, সেটা হলো তার গলার ফুসফুস আকৃতির সোনার নেকলেসটি। ওই নেকলেস দিয়েই আবৃত ছিল বেলার স্তনযুগল। জালের কাজ করা সোনালি রঙের ওই নেকলেসের নকশাটিতে অজস্র জলের বিন্দুর মতো ছোট ছোট পাথর বসানো। যা দূর থেকে দেখতে লাগছে একটি গাছ। আর এই সাজেই মাতোয়ারা গোটা নেট দুনিয়া। এই চলচ্চিত্র উৎসবে বেলার রুপ অন্যদের থেকে ছাপিয়ে গিয়েছেন সেটা এক বাক্যে স্বীকার করেছেন নেটিজেনরা।

উল্লেখ্য,বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দরী নারী
হিসেবে খ্যাত বেলা। বেলার পুরো না ইসাবেলা খায়ের হাদিদ। ‘গোল্ডেন রেশিও অব বিউটি পাই স্ট্যান্ডার্ড’ অনুসারে রূপসী নারীদের সৌন্দর্যের পরিমাপ করা হয়। এটা একটি প্রাচীন গ্রিক গণিত পদ্ধতি। আর সেই পরিমাপে বেলার প্রাপ্ত নম্বর ৯৪ দশমিক ৩৫ শতাংশ। সেই ভিত্তিতেই  বিশ্বের সব থেকে সুন্দরী নারীর খেতাব নিজের নামে করে নিয়েছেন মাত্র ২৩ বছর বয়সী এই মার্কিন সুপার মডেল।

 

Related Articles

Back to top button