অফবিট

বাথরুমে স্বামীর যৌনাঙ্গ কাটলেন স্ত্রী! তারপর?

Advertisement

ভারত বার্তা ডেস্ক : বিয়ে করেছেন বহু বছর আগেই। কিন্তু বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সম্পর্কটা কেমন বিষিয়ে উঠেছিলো। তাই বিবাহ সম্পর্ক বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নেন স্বামী-স্ত্রী দুজনেই। সেইমতো আইনি বিচ্ছেদ হয় তাঁদের। বিচ্ছেদের পর দ্বিতীয়বার বিয়ের পিড়িতে বসতে যায় থাইল্যান্ডের বাসিন্দা ৫৮ বছর বয়সী চে। বিয়ের ছাদনাতলা হাজির হন তার প্রথম স্ত্রী লি। সেখান থেকে তাকে জোর করে টেনে বাথরুমে নিয়ে গিয়ে ঝগড়া করতে করতে ছক বুঝে চে-এর পুরুষাঙ্গ কেটে ফেলে দেন লি। এরপর ঘুমের ওষুধ খেয়ে নিজেও আত্মহত্যা করার চেষ্টা করে। কিন্তু পুলিশের প্রচেষ্টায় তা ব্যর্থ হয়। এরপর তাদের দুজকেই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কি কারণে এমন কাহজ করেছেন জানতে চাইলে লি বলেন, ওর সঙ্গে আমার বিয়ে হয়েছিলো বহু বছর আগে। বিবাহের সম্পর্ক না থাকলেও অন্য কারও সঙ্গে যৌন মিলন করতে দেবো না।

এক তরুণীকে অপারেশন করতে গিয়ে ডাক্তার বাবুরা যা দেখলেন, অবাক হয়ে যাবেন!

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button