×
আন্তর্জাতিকনিউজ

করোনার চিকিৎসায় খোঁজ প্রোটিন ডোজের, সাফল্য ব্রিটিশ বিজ্ঞানীদের

একদল ব্রিটিশ বিজ্ঞানী দাবি করেছেন, বিশেষ এক ধরণের প্রোটিন প্রয়োগের ফলে করোনার চিকিৎসায় অভূতপূর্ব সাফল্য পাওয়া গিয়েছে। বিজ্ঞানীরা এই প্রোটিন ডোজের নাম দিয়েছেন SNG001.

Advertisement

করোনার বিরুদ্ধে লড়ছে সমগ্র বিশ্ব। মারণ এই ভাইরাসের ভ্যাকসিন খুঁজতে চেষ্টা চালাচ্ছে একাধিক দেশ। সমগ্র বিশ্বে প্রায় ১৫৫ টি ভ্যাকসিন নিয়ে গবেষণা চলছে। এর মধ্যে অনেকগুলি ভ্যাকসিনের আবার হিউম্যান ট্রায়ালও চলছে। এরই মধ্যে একদল ব্রিটিশ বিজ্ঞানী দাবি করেছেন, বিশেষ এক ধরণের প্রোটিন প্রয়োগের ফলে করোনার চিকিৎসায় অভূতপূর্ব সাফল্য পাওয়া গিয়েছে। বিজ্ঞানীরা এই প্রোটিন ডোজের নাম দিয়েছেন SNG001.

Advertisement

এক ব্রিটিশ বায়োটেক সংস্থা সিনেইর্গেনের বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন, একটি বিশেষ ধরণের প্রোটিন মিশ্রণ তারা তৈরি করেছেন যা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে খুবই কার্যকরী। বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন এই প্রোটিন মিশ্রণ ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে খুবই কার্যকরী। পাশাপাশি করোনা রোগীদের শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যা দ্রুত কমিয়ে তাদের দ্রুত সুস্থ করে তুলতে সক্ষম এই প্রোটিন মিশ্রণ।

জানা যাচ্ছে, ইতিমধ্যেই এই প্রোটিন ডোজের প্রাথমিক হিউম্যান ট্রায়াল দেওয়া হয়ে গিয়েছে। প্রথমবার হিউম্যান ট্রায়ালে অভূতপূর্ব সাফল্যও পাওয়া গিয়েছে বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। আরও জানা যাচ্ছে, এই প্রোটিন ডোজের ফলে ৯-১০ দিনের পরিবর্তে মাত্র ৬-৭ দিনেই করোনা রোগী সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরতে পারছেন। গত মে মাসে সাউদহ্যাম্পটন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের সাথে মিলে এই প্রোটিন ডোজ নিয়ে পরীক্ষা চালায় সিনেইর্গেন। সেখান থেকেই এসেছে এই সাফল্য বলে দাবি বিজ্ঞানীদের।

Advertisement

এই বায়োটেক সংস্থার দাবি, যদি কোনো ব্যক্তি দিনে দুবার করে এই প্রোটিন ডোজ নেন তাহলে তাহলে তাঁর করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি অনেকটাই কমে যায়। একইসাথে করোনা আক্রান্ত হওয়া রোগীদের উপরেও খুব ভালো কাজ করে এই প্রোটিন ডোজ। সিনেইর্গেন এর সিইও জানিয়েছেন, “সোমবার এই প্রোটিন ডোজের হিউম্যান ট্রায়ালের ফলাফল হাতে এসেছে। সেখানে অভূতপূর্ব সাফল্য দেখা গেছে। সঠিক ভাবে এই প্রোটিন ডোজের প্রয়োগে অনেক মানুষের জীবন বাঁচানো সম্ভব হবে, কমবে মৃত্যুর ঝুঁকি।”

Related Articles

Back to top button