নিউজপলিটিক্সরাজ্য

পেট্রোপণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে দুদিন পথে নামবে তৃণমূল, থাকছে একাধিক কর্মসূচি

আজ অর্থাত শনিবার এবং আগামীকাল অর্থাৎ রবিবার এই কর্মসূচি পালন করবে তৃণমূল কংগ্রেস



পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির কারণে বারংবার সমস্যার মুখে পড়েছে সাধারণ মানুষ। এই পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এবারে সেই ইস্যু নিয়ে প্রতিবাদ করতে নামলো তৃনমূল। তৃণমূলের তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে আজকে অর্থাৎ শনিবার এবং আগামীকাল অর্থাৎ রবিবার রাজ্যের সমস্ত জেলায় এই বিক্ষোভ কর্মসূচি আয়োজিত করা হবে। প্রত্যেকটি ব্লক স্তরে এই কর্মসূচি পালন করা হবে এবং রাজ্যের শীর্ষস্তরের নেতা থেকে শুরু করে ৫০ জন পথে নেমে শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ মিছিল করবে।

ইতিমধ্যেই শনিবার থেকে বিভিন্ন জেলায় তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মসূচি শুরু হয়ে গেছে। জায়গায় জায়গায় বিক্ষোভ চলছে। পেট্রোল ডিজেল থেকে শুরু করে রান্না গ্যাসের দাম বৃদ্ধি সবকিছু নিয়েই এবারে প্রতিবাদের রাস্তা বেছে নিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার গঙ্গাসাগরের মন্দির তলা বাজারের রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। অন্যদিকে, কচুবেড়িয়া গঙ্গাসাগর রোডের উপরে টায়ার এবং বাইক জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছে তৃণমূল কর্মীরা। তার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির কুশপুতুল পোড়ানো হয় বলেও অভিযোগ। সেখানে কাঠ জ্বালিয়ে রান্না করতে শুরু করেন তৃণমূল কর্মীরা। মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে অভিনব পদ্ধতিতে বিক্ষোভ তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীদের।

অন্যদিকে, আরো এক ছবি দেখা গেল ক্যানিংয়ে। শনিবার ক্যানিং পূর্বের বিধায়ক তথা দক্ষিণ ২৪ পরগনা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি শওকত মোল্লা তৃণমূল এবং যুব তৃণমূল কর্মীদের নিয়ে একটি বিক্ষোভ মিছিল করেন। সেই মিছিলে রান্নার গ্যাস ঘাড়ে করে সদানন্দ মোড় থেকে জীবনতলা বাজার পর্যন্ত তিনি নিয়ে যান। এছাড়াও, পেট্রোল পাম্প এ পেট্রোল নিতে আসা সমস্ত ব্যক্তিদের স্বাক্ষর যোগাড় করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। গণস্বাক্ষর যোগাড় কর্মসূচি এর আগেও বিভিন্ন বিক্ষোভ মিছিল করা হলেও পেট্রোপণ্যের দাম নিয়ে করা বিক্ষোভে এই প্রথম হয়তো গণ স্বাক্ষর যোগাড় করার কর্মসূচি গ্রহণ করছে তৃণমূল কংগ্রেস।

অন্যদিকে এই মূল্য বৃদ্ধি প্রসঙ্গে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন, “আন্দোলন করে কখনো দাম কমেনি আর কমবেও না। যখন আন্তর্জাতিক মার্কেটের সঙ্গে সামঞ্জস্য আসবে তখন পেট্রোলের দাম আপনাআপনি কমে যাবে। সরকার দাম কমাতে পারেনা। সরকারের রেগুলেটরি কমিটি রয়েছে তারা সিদ্ধান্ত নেয়।” দিলীপ ঘোষের আবার পাল্টা পরামর্শ, রাজ্য সেস কমিয়ে দিক তাহলে, পেট্রোল-ডিজেলের দাম কমে যাবে।

Related Articles

Back to top button