×
টলিউডবিনোদন

Yash-Nushrat: রাজস্থানে মধুচন্দ্রিমায় গেলেন যশ-নুসরাত? ধীরে ধীরে অভিনেতাকে চিনছেন তিনি

Advertisement

টলিউডের অন্যতম চর্চিত জুটি যশ ও নুসরাত। গতবছর থেকেই তাদের নিয়ে চর্চা চলে প্রায়ই। তাদের একসাথে থাকা নিয়ে, বাবা মা হওয়া নিয়ে অনেক প্রশ্ন মানুষের মনে। কিন্তু তারা কিছুতেই নিজেদের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে মুখ খুলতে চাননি প্রকাশ্যে। তারা নিজেদের ব্যক্তিগত জীবনকে আড়ালেই রাখতে চেয়েছেন। তবে মিডিয়া ও সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে সেটা সম্ভব নয়। তারকাদের জীবনের খুঁটিনাটি খবর প্রায়ই প্রকাশ্যে চলে আসে। সম্প্রতি রাজস্থানের টুকরো টুকরো কিছু দৃশ্যের ছবি প্রকাশ্যে এসেছে। যেগুলো দেখে অনেকের মনে প্রশ্ন উঠেছে, তবে কি মধুচন্দ্রিমায় গেলেন যশ আর নুসরাত?

Advertisement

সম্প্রতি নুসরাত জাহান নিজের সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায় একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন যেখানে অনেকগুলো ছবি একসাথে পরপর দেখা যাচ্ছে। সেই ভিডিওইতে দেখা গিয়েছে এই তারকা দম্পতি কখনো উটের পিঠে বসে রয়েছেন, আবার কখনো কোনো একটি ফোর্টের চেয়ারে বসে ছবি তুলছেন, আবার কখনো রেড ওয়াইনের গ্লাসে চুমুক দিতে দেখা গিয়েছে তাদের, ছায়ায় তাদের চুমু খেতেও দেখা গিয়েছে ; এমন বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য করতে দেখা গিয়েছে নেটিজেনদের।

Advertisement

সম্প্রতি এই ভিডিও শেয়ার করে অভিনেত্রী ক্যাপশনে লিখেছেন, তিনি ধীরে ধীরে অভিনেতাকে চিনছেন। একে অপরকে বুঝছেন সময় নিয়ে। তাদের আত্মা আলাদা হলেও তাদের মধ্যে মিল রয়েছে অনেক। এমন ক্যাপশন দেখে বোঝাই যাচ্ছে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক দিন দিন গভীর হচ্ছে।

অভিনেত্রী যখন মা হয়েছিলেন, তখন বেশ কয়েকটা মাস ধরে সর্বদা নুসরাত জাহানের পাশে পাশেই দেখা গিয়েছে যশ দাশগুপ্তকে। তখন নিজেদের সম্পর্কের কথা স্বীকার না করলেও ঈশানের জন্মের পর প্রকাশ্য মিডিয়ার সামনে নুসরাত ও যশ দুজনেই স্বীকার করে নিয়েছেন একে অপরের সাথে তাদের সম্পর্কের কথা। এমনকি ঈশান যে তাদেরই সন্তান তাও তারা জোর গলায় জানিয়েছেন। জানা গিয়েছে জন্মের শংসাপত্র অভিনেতার পদবী লেখা হয়েছে।

তারা নিজেদের ছেলেকে একটু বড় না হওয়া পর্যন্ত লাইমলাইটে আনতে চান না। তবে সেই নিয়েও কম কথা শুনতে হয়নি তাদের। এই প্রসঙ্গ নিয়ে চর্চা চলে এখনো। তবে তাতে যে তাদের কিছুই যায় আসে না তারা জানিয়ে দিয়েছেন। নিজেদের ছেলের জন্য তারা যেটা ভালো বলে মনে করবে সেটাই করবেন। সম্প্রতি ভালোবাসার দিনে একে অপরের সাথে ছবিও শেয়ার করতে দেখা দিয়েছে তাদের।

Related Articles

Back to top button