নিউজপলিটিক্সরাজ্য

সন্ত্রাস এবং ভয়ের পরিস্থিতি সৃষ্টি করে রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করতে চাইছে শাসক দল, তৃণমূলকে কটাক্ষ দিলীপের

×
Advertisement

আলিপুরদুয়ারে দলীয় কর্মসূচিতে গিয়ে বৃহস্পতিবার বিক্ষোভের মুখে পড়তে হলো রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষকে। তাকে দেখানো হল কালো পতাকা এবং স্লোগান দেওয়া হলো গো ব্যাক। এছাড়াও তার কনভয়ের উপরে ইটবৃষ্টি এবং পাথর ছোড়া হয়েছে বলে অভিযোগ দিলীপের। অল্পের জন্য তিনি বেঁচে গেছেন বলে জানিয়েছেন সংবাদমাধ্যমকে। এছাড়াও ভেঙে দেওয়া হয়েছে তার গাড়ির বেশ কয়েকটি কাচ। আর এই ঘটনার সরাসরি অভিযোগ করে তিনি আক্রমণ করেছেন রাজ্যের শাসক দলকে। তৃণমূলকে তিনি সরাসরি জানিয়ে দিয়েছেন, এইসবে তিনি ভয় পান না।

Advertisement

এদিন আলিপুরদুয়ারে জয়গাঁর সভাশেষে দিলীপ ঘোষ বলেন, ” দলীয় কর্মসূচি করতে যাচ্ছিলাম। সেখানেই আমাকে লোকজন কালো পতাকা নিয়ে ধাওয়া করে। সেটাতে কোন অসুবিধা নেই, গো ব্যাক স্লোগান নিয়েও কোনো অসুবিধা নেই। কিন্তু ইট পাটকেল মারা মেনে নেওয়া যায় না। তার আমার গাড়ির কাচ ভেঙে দিয়েছে। অনেকে বাইকে ছিলেন তাদের বেশ কয়েকজনের চোট লেগেছে। আমরা সবাই ঠিক আছি। সভা একেবারে ঠিকঠাক হয়েছে। তৃণমূল যদি মনে করে এভাবে ভয় দেখিয়ে বিজেপিকে আটকানো যাবে, তা কিন্তু হবেনা। আমরা কাউকে ভয় পাই না”।

ফের রাষ্ট্রপতি শাসন চালু করার প্রসঙ্গ উস্কে দিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, ” অনেকেই প্রশ্ন করছেন রাজ্যে ৩৫৬ ধারা চালু হবে কিনা। আমার মনে হয় ইচ্ছে করেই রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করার পরিস্থিতি ডেকে আনছে তৃণমূল। রাস্তায় বেরোনো যাবেনা, রাজনৈতিক কর্মসূচি করা যাবে না। এটা কোনো গণতান্ত্রিক দেশে হতে পারেনা। এর আগেও আমার উপরে হামলা চালানো হয়েছিল। পুনরায় আবার হল।”

Advertisement

এলিন দিলীপবাবু আরো বলেছেন, ” গ্রামে গ্রামে বুথে বুথে যেভাবে বিজেপি পৌঁছে গিয়েছে তা দেখে ভয় পেয়েছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল। এই কারণেই তারা হামলা চালাচ্ছে প্রতিদিন।” কারা হামলা চালিয়েছে, এই প্রশ্নের জবাবে দিলীপ ঘোষ সরাসরি তৃণমূলের দিকে অভিযোগের তির উঁচিয়ে কটাক্ষ করেন।

এদিনের ঘটনার নিন্দা করেছেন স্বয়ং রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরও। তৃণমূলকে নাম না করে কটাক্ষ করে তিনি বলেছেন,” যেকোনো রাজনৈতিক ব্যক্তির উপর এভাবে হামলা চালানো হলে তা নিন্দনীয়। যেকোনো রাজনৈতিক হিংসা কে আমি নিন্দা জানাই।”

Related Articles

Back to top button