আন্তর্জাতিকদেশনিউজ

করোনার নতুন স্ট্রেন আতঙ্ক, ব্রিটেনে উড়ান নিষেধাজ্ঞার সময়সীমা বাড়ল

Advertisement

নয়াদিল্লি: জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ের পরীক্ষা যত বাড়ছে, ভারতে ততই বাড়ছে আশঙ্কা। ব্রিটেনের নয়া ভাইরাসের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে অনেক ব্রিটেন ফেরত যাত্রীর দেহে। এই আবহে উড়ান নিষেধাজ্ঞার সময়সীমা আরও বৃদ্ধি করা হল। প্রাথমিকভাবে ৩১ ডিসেম্বর অবধি থাকলেও সেই সময়সীমা বৃদ্ধি করে ৭ জানুয়ারি করা হয়েছে।

অসামরিক উড়ান পরিবহন মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরি বুধবার বলেন, “২০২১ সালের ৭ জানুয়ারী ব্রিটেন থেকে আসা ও যাওয়ার জন্য উড়ানে সাময়িক স্থগিতাদেশকে আরও বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এরপরে কঠোরভাবে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করা গেলে পুনরায় শুরু হবে উড়ান পরিষেবা। তা বিশদে শীঘ্রই ঘোষণা করা হবে।”

ব্রিটেনের এই করোনার স্ট্রেনের সংরকমণ হার প্রায় ৭০ শতাংশ দ্রুত। যার জেরে কয়েক দিনের মধ্যেই বিপর্যস্ত হয়েছে গোটা ব্রিটেন। মঙ্গলবারই ভারতে ছ’জনের দেহে এই ভাইরাসের সেই মিউট্যান্ট স্ট্রেন পাওয়া গিয়েছে। বুধবার সকালেই সেই সংখ্যা পেরিয়েছে ২০ জন। এদিকে, নয়া এই স্ট্রেন রুখতে কঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছে কেন্দ্র। ৯ ডিসেম্বর থেকে ২২ ডিসেম্বর পর্যন্ত ব্রিটেন ফেরত যাত্রী যারা করোনা আক্রান্ত তাঁদের নমুনার জিনোম সিকোয়েন্সিং করা হচ্ছে। পর্যবেক্ষণের পাশাপাশি বাড়তি নজরদারীও রাখা হচ্ছে যাতে এই ভাইরাস না ছড়িয়ে পড়ে।

এদিকে, এবার কলকাতাতেও মিলল করোনাভাইরাসের নয়া স্ট্রেন। লন্ডন ফেরত এক যুবকের দেহে হদিশ মেলে কোভিড-১৯ এর নয়া প্রজাতির। কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে আইসোলেশনে রয়েছেন। নদিয়ার NIV ল্যাবে পরীক্ষায় ওই যুবকের দেহে করোনার নয়া এই স্ট্রেনের হদিশ মেলে।

ব্রিটেনে করোনার নয়া স্ট্রেনের হদিশ পাওয়া গেলেও এখন ডেনমার্ক, নেদারল্যান্ডস, অস্ট্রেলিয়া, ইটালি, সুইডেন, ফ্রান্স, স্পেন, সুইজারল্যান্ড, জার্মানি, কানাডা, জাপান, লেবানন, সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ কোরিয়া ও ভারতেও ছড়িয়ে পড়েছে এই স্ট্রেন। মঙ্গলবার ব্রিটেনে একদিনে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ২০ হাজারেরও বেশি। যা সে দেশের করোনা ইতিহাসে সর্বোচ্চ।

Tags

Related Articles

Back to top button