বলিউডবিনোদন

Kapil Deb: বিশ্বকাপ জয়ের রাতে গোটা ভারতীয় দল খালি পেটে ঘুমিয়েছিল! এত দিনে গোপন কথা ফাঁদ কপিল দেবের

×
Advertisement

সিনেমাপ্রেমী ও ক্রিকেটপ্রেমীদের জন্য ২৪ অক্টোবর ছিল মস্ত বড় দিন। এইদিন মুক্তি পাচ্ছে বহু প্রতিক্ষীত হিন্দি ছবি ‘৮৩’। হবে নাই বা কেন? বড়দিনের আগেই বলিউডের বড় চমক দিয়েছেন পরিচালক কবীর সিং। আর প্রথম দিনের প্রথম শো দেখার জন্য আগে থেকেই হলে হলে সিনেপ্রেমীদের টিকিটের লাইন পড়ে গিয়েছে। এমনকি অনলাইনে টিকিট কাটার টিকিটের হিরিকও কম নয়। বলাই বাহুল্য, ২৩ তারিখ রাত থেকেই উত্তেজনার পারদ চড়তে শুরু করে দিয়েছে সকলদের। সিনেমা মুক্তির আগেই ৮৩ হিট হয়ে গিয়েছে তা বলা যেতে পারে। আর এই সিনেমা গত কাল গতকাল বিশ্বব্যাপি বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে।

Advertisement

১৯৮৩ সালে কপিল দেবের নেতৃত্বে ভারতের প্রথম ক্রিকেট বিশ্বকাপ জয়ের গল্প উঠে আসবে এই ছবিতে। বক্স অফিসে এই সিনেমা প্রথমদিনে ভালোই ফল করেছে। এমনকি সমালোচকদের কাছেও এই সিনেমা বেশ হিট হয়েছে। তবে এই ছবি নিয়ে ক্রিকেট প্রেমীদের মধ্যে বেশ উন্মাদনা যে আকাশ ছুঁয়েছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। তার আগে বৃহস্পতিবার সন্ধ‍্যায় মুম্বইতে হয়েছে রণবীর দীপিকার এই ছবির স্পেশ‍্যাল স্ক্রিনিং। এই দিন রণবীর সিং, দীপিকা পাডুকোনের পাশাপাশি উপস্থিত ছিল সিনেমার গোটা টিম। এবং ৮৩’র বিশ্বকাপে ভারতের গোটা টিম।

এই স্পেশ্যাল স্ক্রিনিংয়ে হাজির ছিলেন বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক কপিল দেব। আর এদিন
একটি সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাৎকারে কপিল দেব এক বিশেষ দিনের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন । কপিল দেব এদিন জানিয়েছেন, যেদিন নিজের শক্তিশালী প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ফাইনালে হারিয়ে বিশ্বকাপ জয়ের রাতে গোটা ভারতীয় দল না খেয়ে ঘুমিয়েছিল। কিন্তু কেন ভাবছেন তো? কপিল এর উত্তরে জানিয়েছেন, একটি বিল তাঁকে দেওয়া হয়েছিল বহুমূল্যের। কিন্তু কীভাবে এত টাকার বিল হয়েছিল তা আজও তাঁর কাছে রহস্যময়৷ এদিন সাক্ষাৎকারে কপিল আরও জানিয়েছেন, ভারতীয় খেলোয়াড়রা সারা রাত সেদিন পার্টি করেছিলেন। রাতে খাবার খাওয়ার আর সময় পাননি কোনো ক্রিকেটারে।

Advertisement

যখন আনন্দ উচ্ছ্বাস কিছুটা কমতে শুরু করে এবং প্রত্যেকে একটু কথা বলতে বসার সময় পান, তখন দেখা যায় এতটাই রাত হয়ে গিয়েছে যে, সেই সময় আর কোনও রেস্তোরাঁ বা ক্যান্টিন আর খোলা ছিলনা। অগত্যা খালি পেটেই সব খেলোয়াড়রা সেদিন রাতটা কাটিয়েছিলেন। আসলে, বিশ্বকাপ জয়ের আনন্দের পেট-মন ভরে গিয়েছিল সকলের। কপিল এদিন জানিয়েছেন, দেশের জন্য ইতিহাস লেখা ছেলেরা সেদিন আর নিজের খাওয়া নিয়ে একবারও ভাবেননি। বরং আনন্দেই সকলে ঘুমিয়েছিলেন খালি পেটে।

Related Articles

Back to top button