নিউজদেশ

যাত্রীদের তথ্য বিক্রি করে ধনী হতে চাইছে রেল? কি তথ্য উঠে গেল টেন্ডার ডিটেইলসে?

যাত্রীদের তথ্য বিক্রি করে টাকা রোজগার করার পরিকল্পনা নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হল ভারতীয় রেলওয়ে

×
Advertisement

যাত্রীদের তথ্য বিক্রি করে অতিরিক্ত আয়ের পরিকল্পনা করেছিল আইআরসিটিসি। এর জন্য নাকি অতিরিক্ত টেন্ডারও ডাকা হয়েছিল। তবে শুক্রবার সংসদীয় স্ট্যান্ডিং কমিটির সামনে আইআরসিটিসির তরফে জানিয়ে দেওয়া হলো, এই টেন্ডার বাতিল করা হয়েছে এবং যাত্রীদের তথ্য বিক্রি করা হবে না। কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুরের নেতৃত্বাধীন তথ্য এবং প্রযুক্তি বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটির সামনে আইআরসিটিসি শুক্রবার জানিয়েছে যে তারা তথ্য বিক্রি সংক্রান্ত সংশ্লিষ্ট টেন্ডার বাতিল করেছে। এর আগে যাত্রীদের গোপনীয়তা রক্ষা নিয়ে সংশয় দেখা গিয়েছিল আইআরসিটিসি পদক্ষেপে। এই আবহাওয়া কিছুটা পিছনে হঠাৎ সিদ্ধান্ত নিল আইআরসিটিসি।

Advertisement

আইআরসিটিসি যাত্রীদের তথ্য বিক্রি সংক্রান্ত টেন্ডার ডাকার পরে এই রেলের কর্তাদের তরফ করেছিল তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটি। রেলের পাশাপাশি টুইটারকে তলব করা হয়েছিল এই মর্মে। কেন্দ্রীয় স্ট্যান্ডিং কমিটির তরফ থেকে এই বিষয়টি নিয়ে শুরু হয়েছিল কাজ। তবে বিতর্কে মুখোমুখি হয়ে রেল বেশ কিছুটা পিছনে সরে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রেলের তরফে জানানো হয়েছে, পরামর্শ তাতে নিয়োগের জন্য ইতিমধ্যেই টেন্ডার ডাকা হয়েছে এবং উক্ত পরামর্শদাতাকে রেলের অ্যাপ থেকে গ্রাহকদের সম্পর্কিত ডেটার পাশাপাশি যাত্রী মালবাহী এবং পার্সেল ব্যবসার পরিসংখ্যান নিয়ে গবেষণা করতে বলা হয়েছে।

তবে সেই ডেটা সম্পূর্ণ সুরক্ষিত রাখা হবে। যে ডাটা বিক্রি হবে সেখান থেকে কোন অতিরিক্ত লাভ করার পরিকল্পনা নেই আইআরসিটিসি কর্তৃপক্ষের। বরং ডেটা ব্যবহার করে কিভাবে পরিষেবা আরো উন্নত করা যায় সেই লক্ষ্যে ভাবনাচিন্তা শুরু করেছে আইআরসিটিসি। ইন্টারনেটের যুগে যেখানে ব্যক্তিগত ডেটা, যেমন নাম বয়স, ঠিকানা, জন্ম তারিখ, ইমেইল, ফোন নম্বরের দাম অপরিসীম, তেমনি কিন্তু টার্গেটেড বিজ্ঞাপনের ক্ষেত্রে এই ধরনের ডেটাবেসের অত্যন্ত প্রয়োজন রয়েছে। উল্লেখ্য, আইআরসিটিসি ওয়েবসাইটে বিপুল সংখ্যক লোক তাদের টিকিট বুক করে থাকেন। ওয়েব সাইটে লগইন করতে হলে সেই ব্যবহারকারীদের নিজের বিস্তারিত তথ্য দিতে হয়। Irctc এর কাছে সেই সমস্ত তথ্য সঞ্চিত থাকে।

Advertisement

তবে বর্তমানে বেশিরভাগ রেলের টিকিট বুক করা হয় আইআরসিটিসি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। ট্রেনের টিকিট বুকিংয়ে আইআরসিটিসি-র একচেটিয়া অধিকার রয়েছে। এই কারণেই কোম্পানির ওয়েবসাইটে ব্যবহারকারীদের বিপুল পরিমাণ ডিজিটাল ডাটা পাওয়া যাচ্ছে। Irctc এর কাছে যে বিশাল ডেটাবেস রয়েছে, তেমনটা খুব কম কোম্পানির কাছেই রয়েছে। এই কারণেই, আইআরসিটিসি এই তথ্য ব্যবহার করে টাকা রোজগারের পরিকল্পনা করেছিল আইআরসিটিসি।

Related Articles

Back to top button