দেশনিউজ

১ জুলাই থেকে খুলবে স্কুল-কলেজ, রবিবার থেকে পুরোপুরি লকডাউন তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত

তেলেঙ্গানায় সম্পূর্ণরূপে লকডাউন তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কে চন্দ্রশেখর রাও সরকার



করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ এখন বর্তমানে অনেকটা নিচের দিকে নেমে গেছে। এখন দক্ষিণ ভারতের রাজ্য তেলেঙ্গানায় সংক্রমণের হার এক শতাংশেরও নিচে। এই পরিস্থিতিতে যাবতীয় বিধিনিষেধ তুলে নিয়ে সম্পূর্ণ স্বাভাবিক জীবনযাপন চালু করার পথে হাঁটতে চলেছে তেলেঙ্গানা। তেলেঙ্গানা সরকার জানিয়ে দিয়েছে আগামী ২০ জুন থেকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে চলেছে দক্ষিণ ভারতের রাজ্যটি। অন্যদিকে, এই মুহূর্তে তারা ঘোষণা করেছে আগামী পয়লা জুলাই থেকে তেলেঙ্গানার সমস্ত স্কুল-কলেজ এবং যাবতীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হবে।

তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাওয়ের কার্যালয় থেকে জানানো হয়েছে রাজ্যের করো না পরিস্থিতি বিবেচনা করে মন্ত্রিসভার বৈঠকে সর্বসম্মতিতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে তেলেঙ্গানা সরকার। এছাড়াও বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে আপাতত সমস্ত বিধিনিষেধ শনিবারের মধ্যে শেষ করে আগামীকাল থেকে একেবারে নতুন করে সব কিছু শুরু করার পরিকল্পনা নিয়েছে তেলেঙ্গানা। রবিবার থেকে স্বাভাবিক জনজীবন চালু হবে বলে জানিয়ে দিয়েছে তেলেঙ্গানা সরকার। অন্যদিকে আগামী পয়লা জুলাই থেকে ওই রাজ্যের সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

শনিবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে একটি বিবৃতিতে মুখ্যমন্ত্রীকে চন্দ্রশেখর রাও এর কার্যালয় এর তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ” সম্পূর্ণভাবে লকডাউন তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্যের মন্ত্রী সভা। স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের রিপোর্ট বিবেচনা বিশ্লেষণ করে লকডাউন প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা। করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা এবং সংক্রমণের হার বর্তমানে একেবারে নিম্নমুখী। তেলেঙ্গানায় করোনা বর্তমানে একেবারে নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে।”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ৯ জুন আরো ১০ দিনের জন্য পুনরায় কড়া লকডাউন শুরু করেছিল কে চন্দ্রশেখর রাও সরকার। সেখানে জানানো হয়েছিল সকাল ৬ টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত বিধি-নিষেধের কিছুটা শিথিলতা থাকবে কিন্তু বাকি সময়ে কড়া বিধি-নিষেধ চলবে। এই লকডাউন এর ফলে তেলেঙ্গানায় বর্তমানে করোনাভাইরাস বেশ খানিকটা নিয়ন্ত্রণে। তেলেঙ্গানা স্বাস্থ্য দপ্তরের রিপোর্ট অনুযায়ী, শুক্রবার তেলেঙ্গানায় ১,৪১৭ জন নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এবং মৃত্যু হয়েছে ১২ জনের।

Related Articles

Back to top button