দেশনিউজ

প্রবল বেগে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘টাউকটে’! কবে, কোথায় আছড়ে পড়বে

ঘূর্ণিঝড় থেকে তীব্র ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হচ্ছে "টাউকটে"

×
Advertisement

গত বছরের আমফানের পর মরশুমের প্রথম ঘূর্ণিঝড় টাউকটে ক্রমশ শক্তি বৃদ্ধি করে ভারতীয় উপকূলের দিকে আসছে। কিছুদিন আগেই আইএমডি জানিয়েছিল যে আরব সাগরে একটি ঘূর্ণিঝড় তৈরি হচ্ছে। নিম্নচাপের কারণে ধীরে ধীরে শক্তি বৃদ্ধি করছে এই ঘূর্ণিঝড়। আরব সাগরের ওপর ঘূর্ণিঝড় টি আগামী ৩ দিনে ৪ টি স্টেজ পার করে তীব্র ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। প্রথমে জানানো হয়েছিল যে এই ঘূর্ণিঝড় কেরল এবং মহারাষ্ট্র উপকূল আঘাত হানবে। কিন্তু এটি তীব্র ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হলে আগামী ১৮ মে এরমধ্যে গুজরাট এবং পাকিস্তান উপকূলে পৌঁছে যাবে। এখন এই ঘূর্ণিঝড়টি তার শক্তি বৃদ্ধি করার জন্য অনুকূল পরিবেশ পাচ্ছে আরব সাগরে।

Advertisement

এখন থেকেই ঘূর্ণিঝড়টি তার শক্তি প্রদর্শন করা শুরু করে দিয়েছে। আরব সাগরে তৈরি নিম্নচাপের জেরে প্রবল বর্ষণ শুরু হয়েছে কেরলে। এমনকি বৃষ্টিপাতের পরিমাণ দেখে হলুদ সর্তকতা জারি করা হয়েছে কেরল জুড়ে। এই ঘূর্ণিঝড় আগামীকাল অর্থাৎ ১৪ মে এর মধ্যে আরও বেশি ঘনীভূত হবে। এর জেরে গোয়া, মহারাষ্ট্র, কর্ণাটক ইত্যাদি উপকূলবর্তী এলাকায় আগামী ৫ দিন ভারী বৃষ্টিপাত হবে। এছাড়া এই ঘূর্ণিঝড় গুজরাটের কচ্ছ এলাকায় প্রভাব ফেলতে পারে। আবহবিদরা জানিয়েছে যে এই ঘূর্ণাবর্ত তীব্র ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হলে তার গতি প্রকৃতি সম্বন্ধে স্পষ্ট তথ্য জানা যাবে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, চলতি বছরের এই টাউকটে ঘূর্ণিঝড় সম্বন্ধে আগে থাকতে সাবধান হচ্ছে গুজরাট। ইতিমধ্যে বিপর্যয় মোকাবিলা করার জন্য গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রুপানি একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করেছেন। আশঙ্কা করা হচ্ছে এই ঘূর্ণিঝড়ে গুজরাটের কচ্ছ এবং সৌরাষ্ট্র অঞ্চলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে। নিম্নচাপের জেরে আগামীকাল ৪০-৫০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা এবং ১৫ মে তে ৬০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা বেগে ঝড় বইতে পারে। তবে ১৬ মে এই ঝড়ের তীব্রতা ৮০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা হয়ে যেতে পারে। ইতিমধ্যেই উপকূলবর্তী অঞ্চল থেকে মৎস্যজীবীদের সরে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Advertisement

Related Articles

Back to top button