দেশনিউজ

দিল্লির দূষণ, ঠান্ডা ও করোনা প্রকোপে বাড়তে পারে অসুস্থতা, তাই গয়ায় গেলেন সোনিয়া গান্ধী, সঙ্গে আছেন রাহুল

Advertisement

নয়াদিল্লি: একে তো করোনার তৃতীয় ঢেউ চলছে দিল্লিতে। তার ওপর ঠান্ডার প্রকোপ বেড়ে চলেছে। আর বায়ু দূষণের কথা বললে কিছুই আর বলার থাকে না। কারণ, দৃশ্যমানতা যে জায়গায় গিয়ে পৌঁছেছে রাজধানীতে, তাতে কোনও সুস্থ মানুষের বেঁচে থাকা সম্ভব নয়। এমন পরিস্থিতিতে এতটুকু ঝুঁকি না নিয়ে চিকিৎসকদের পরামর্শে কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী দিল্লি ছাড়লেন। আপাতত তিনি গোয়ায় থাকবেন বলে জানা গিয়েছে। তাঁর সঙ্গে গিয়েছেন ছেলে রাহুল গান্ধীও।

শুক্রবার বিকেলে গাড়ি করে গয়ার পথে রওনা হন সোনিয়া-রাহুল। গত জুলাই মাসে বুকের সমস্যা নিয়ে দিল্লির এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন সোনিয়া গান্ধী। তারপর চিকিৎসার জন্য তিনি গত সেপ্টেম্বরে বিদেশেও যান। এখনও তাঁর চিকিৎসা চলছে বলে কংগ্রেস সূত্রে খবর। তাই চিকিৎসকদের পরামর্শ নিয়ে দিল্লি ছাড়লেন কংগ্রেস সভানেত্রী।

জানা গিয়েছে, যেভাবে দিল্লিতে বায়ু দূষণ হচ্ছে, যেভাবে শীতের প্রকোপ বাড়ছে এবং তার পাশাপাশি করোনার প্রকোপ বেড়ে চলেছে, সেখানে সোনিয়া গান্ধীর থাকাটা একেবারেই নিরাপদ নয়। যে কোনও সময় তাঁর বুকের সমদ্যা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা চিকিৎসকদের। আর তাই সোনিয়া-রাহুল আপাতত থাকবেন গোয়ায়।

প্রসঙ্গত, দিল্লির বায়ু সূচক মাত্রা ৩০০ ছাড়িয়েছে। যেখানে ০ থেকে ৫০-এর মধ্যে থাকলে সেই বায়ুকে স্বাভাবিক এবং নিরাপদ বায়ু বলা হয়। সেখানে দিল্লি ৩০০-র গন্ডি ইতিমধ্যেই পেরিয়ে গিয়েছে। এর ফলে শ্বাসকষ্টে কার্যত জর্জরিত রাজধানীবাসীর জীবন। এর পাশাপাশি দেখা দিয়েছে শীত। এখনও পর্যন্ত শুক্রবার দিল্লির তাপমাত্রা ছিল ৭.৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এই মরশুমে যা সর্বনিম্ন। অন্যদিকে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধনের প্রকাশ করা বুলেটিন অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় দিল্লিতে করোনা আক্রান্ত হয়েছে ৮ হাজারেরও বেশি মানুষ। গত ২৫ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু হয়েছে দিল্লিতে ৯৮ জনের। এমন পরিস্থিতিতে মাকে নিয়ে কোনও ঝুঁকি নিতে চাননি রাহুল। তাই মাকে নিয়ে গোয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন তিনি।

Tags

Related Articles

Back to top button