নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“আমরা তো লস্ট কেস”, শাসকদলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে মন্তব্য শিশির অধিকারীর

আগামীকালের নন্দীগ্রামের সভায় যাওয়ার জন্য আমাদের আমন্ত্রণপত্র দেয়নি দলের পক্ষ থেকে

×
Advertisement

আগামীকাল সোমবার তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) শুভেন্দু গড় নন্দীগ্রামের তেখালি তে একটি জনসভা করবেন। তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষে দাবি করা হয়েছে সেই জনসভায় প্রায় ৩ লাখ মানুষের সমাবেশ হবে। সেই জন্য আজ থেকেই সাজ সাজ রব নন্দীগ্রামে। কিন্তু এরই মাঝে প্রশ্ন উঠেছে যে কালকের জনসভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পাশে কি উপস্থিত থাকবেন পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান শিশির অধিকারী? জানা গিয়েছে শিশির অধিকারী কালকের জনসভায় উপস্থিত থাকবেন না। সেই সাথে থাকবেন না তমলুকে তৃণমূল সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারি।

Advertisement

শিশির অধিকারী আগামীকালের তৃণমূলের শোভা নিয়ে ইতিমধ্যেই ঘনিষ্ঠ মহলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তিনি অভিযোগ জানিয়েছেন যে কালকের তৃণমূলের সভায় তাকে আমন্ত্রণ করা হয়নি। তিনি দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, “আমরা তো লস্ট কেস। নন্দীগ্রামের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভা নিয়ে দলের তরফে কেউ আমাদের সাথে যোগাযোগই করেনি। তাই আমাদের সভায় যাওয়ার কোন প্রশ্নই উঠছে না।”

পূর্ব মেদিনীপুর তথা নন্দীগ্রামে মমতার সভায় এবার অধিকারী পরিবারের কোন সদস্য উপস্থিত থাকবেন না। আসলে শুভেন্দু অধিকারীর বিজেপিতে যোগদান করার পর থেকেই শাসক দলের সাথে অধিকারী পরিবারের দূরত্ব বেড়েছে। কিছুদিন আগেই কাঁথি পুরসভার প্রশাসক পদ থেকে শুভেন্দু অধিকারীর ভাই সৌমেন্দু অধিকারীকে অপসারণ করে দল। পরে রোষের শিকার হন খোদ শিশির অধিকারী। প্রথমে তাকে দীঘা শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে এবং পরে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তৃণমূল সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে দেয় তৃণমূল কংগ্রেস।

Advertisement

Related Articles

Back to top button