টলিউডবাংলা সিরিয়ালবিনোদনভিডিও

পরনে শাড়ি, খোলা চুল! বাড়ির ছাদে নাচলেন ‘ত্রিনয়নী’ শ্রুতি, দেখুন ভিডিও

Advertisement

কিছুদিন আগেই শেষ হয়েছে জনপ্রিয় বাংলা ডেইলি সোপ ‘ত্রিনয়নী’। এই মুহূর্তে ‘ত্রিনয়নী’র নায়িকা অভিনেত্রী শ্রুতি দাস রয়েছেন তাঁর কাটোয়ার বাড়িতে। সেই বাড়ির ছাদেই এবার ডান্স ভিডিও করে ইন্সটাগ্রামে পোস্ট করলেন শ্রুতি। ভিডিওতে ‘নাচ মেরি লায়লা’ গানের সাথে গোলাপি-সবুজ শাড়ি ও সানগ্লাস পরে শ্রুতি ডান্স পারফরম্যান্স করেছেন। এই ভিডিওটি ইন্সটাগ্রামে শেয়ার করে ক্যাপশন দিয়ে শ্রুতি লিখেছেন, নিজেকে তাঁর দেশি লায়লা মনে হচ্ছে। নেটিজেনরা এই ভিডিওতে শ্রুতির একঢাল লম্বা কালো চুলের প্রশংসা করেছেন। শ্রুতির এই ভিডিওটি যথেষ্ট ভাইরাল হয়েছে।

কাটোয়া থেকে কলকাতায় পড়াশোনা করতে এসেছিলেন অভিনেত্রী শ্রুতি দাস। কিন্তু পড়াশোনার পাশাপাশি মডেলিং করার স্বপ্ন দেখতেন শ্রুতি। জি বাংলার জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘ত্রিনয়নী’ র মাধ্যমে শ্রুতির অভিনয়ের কেরিয়ার শুরু হয়। এই সিরিয়ালে অভিনয়ের মাধ্যমে যথেষ্ট জনপ্রিয়তা অর্জন করেন শ্রুতি। তবে চলতি বছরে করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউনের জেরে ‘ত্রিনয়নী’র টিআরপি নেমে যায়। ফলে চ্যানেল কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অনুযায়ী সিরিয়ালটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। এই মুহূর্তে শ্রুতির হাতে সেরকম কাজ না থাকায় তিনি নিজের দেশের বাড়ি কাটোয়ায় ফিরে পড়াশোনায় ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। তবে সম্প্রতি তাঁদের বাড়ির পুজোয় নিজেই সমস্ত যোগাড় দিয়েছেন শ্রুতি। তিনি নিজেই এই ফটো সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন।

এই মুহূর্তে শ্রুতি ‘ত্রিনয়নী’র পরিচালক স্বর্ণেন্দু সমাদ্দারের সাথে সম্পর্কে রয়েছেন। ‘ত্রিনয়নী’র সেট থেকে বয়সে 14 বছরের বড় স্বর্ণেন্দুর সঙ্গে শ্রুতির আলাপ যা ক্রমশ প্রেমে পরিণত হয়েছে। শ্রুতি প্রথম প্রস্তাব দিয়েছিলেন স্বর্ণেন্দুকে। কিন্তু স্বর্ণেন্দু তাঁদের বয়সের ব্যবধানের কথা ভেবে পিছিয়ে গেলেও নাছোড়বান্দা শ্রুতি একসময় স্বর্ণেন্দুর মন জয় করে নেন। কিছুদিন আগেই শ্রুতি ও স্বর্ণেন্দু তাঁদের দুজনের পরিবারের সঙ্গে ঘুরতে গিয়েছিলেন কোনো সমুদ্র সৈকতে। সেখান থেকে বহু ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছিলেন তাঁরা। তবে দুর্গাপূজার সপ্তমীর দিন শ্রুতি চলে আসেন তাঁদের কাটোয়ার বাড়িতে। কিন্তু স্বর্ণেন্দু তাঁর সাথে কাটোয়া যেতে চাননি। তবে এই মুহূর্তে স্বর্ণেন্দু ও শ্রুতির বিয়ের ব্যাপারে দুই পরিবার চিন্তা-ভাবনা করছেন বলে জানা গেছে।

Tags

Related Articles

Back to top button