×
ভাইরাল & ভিডিও

Ranu Mandal: ‘হেলেন আমার সতীন’ রানু মন্ডলের এমন কথায় হাসি থামছে না নেটিজেনদের

Advertisement

নেটমাধ্যমের সূত্র ধরেই মানুষের মাঝে সাময়িক সাময়িক জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন রানু মন্ডল। স্টেশনে বসে গান গেয়ে ভিক্ষা করতেন তিনি। এক স্বহৃদয় ব্যক্তি অতীন্দ্র চক্রবর্তীর দৌলতেই তিনি ভাইরাল হয়েছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ার অসংখ্য নেটনাগরিকদের মধ্যে। এমনকি তার কথা পৌঁছে গিয়েছিল বলিউডের একাধিক তারকাদের কাছেও। বলিউডের গায়ক-কম্পোজার হিমেশ রেশ্মিয়ার তৈরি করা একটি গানে তিনি প্লেব্যাকও করেছিলেন ঐ সময়ে। তবে পরবর্তীকালে আত্মঅহংকারের জন্যই তিনি আবারও ফিরে এসেছেন তার পুরোনো জায়গাতেই। বর্তমানে মানুষের কাছে কথায় কথায় হাসির খোরাক হন তিনি।

Advertisement

এই মুহূর্তে গোটা সোশ্যাল মিডিয়ায় রানু মন্ডল ট্রোল কনটেন্ট হয়ে উঠেছেন। কোনো না কোনো কারণে তিনি ট্রোল হন নেটিজেনদের মধ্যে। তিনি নিজের অদ্ভুত সাজগোজ ও কর্মকাণ্ডের জন্যই প্রতিদিন হাসির খোরাক হয়ে ওঠেন। নেটিজেনদের একাংশের দাবি তিনি ভারসাম্যহীন মানুষ। আবার অনেকের মতে, তিনি সত্যিই যদি ভারসাম্যহীন হতেন তাহলে এমন গান গাইতে পারতেন না। তার গলায় সুর রয়েছে কিন্তু উপযুক্ত প্রশিক্ষণের অভাবে তিনি আজ এই অবস্থায় রয়েছেন। অনেকের মতে, এমন একজন অভাবী, দরিদ্র, ভারসাম্যহীন মানুষকে নিয়ে হাসাহাসি না করাই শ্রেয়। আজকের দিনে দাঁড়িয়ে নেটমাধ্যমে তাকে নিয়ে একাধিক খবর চোখে পড়ে।

Advertisement

বর্তমানে একাধিক ইউটিউবাররা তার বাড়িতে যান তাকে নিয়ে মজার ভিডিও বানাবেন বলে। তেমনি এক ইউটিউবার সম্প্রতি গিয়েছিলেন তার কাছে। তার অনুরোধে তিনি গানও গেয়েছেন। মজা করে রানু মন্ডলকে সকলেই বাংলা লতা মঙ্গেসকার বলে ডাকেন। সম্প্রতি এই ইউটিউবারের অনুরোধে ‘এক পেয়ার কা নাগমা হে’ গানটি গেয়েছেন তিনি। এরপরেই ঐ ইউটিউবার চলে যান প্রশ্ন-উত্তরের পর্বে। আর সেখানেই ওঠে রানু মন্ডলের বিয়ের প্রসঙ্গ। গতবছরের শেষের দিকে বাংলাদেশের এক ইউটিউবার মজার ছলে হলেও ক্যামেরার সামনে রানু মন্ডলকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। এমনকি তাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন বাংলাদেশও।

তবে তার বাংলাদেশ যাওয়ার প্রসঙ্গ উঠতেই রানু মন্ডল জানান তিনি বাংলাদেশে যাবেন না। আর কারণ হিসেবে এক অদ্ভুত কথা বলে বসেন ক্যামেরার সামনে, যা শুনে হাসি থামছে না নেটনাগরিকদের। এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি ঐ ইউটিউবারকে জানিয়েছেন তিনি বাংলাদেশে যাবেন না কারণ বলিউডের অভিনেত্রী হেলেন তার সতীন। সতীন থাকতে তিনি কখনোই সেখানে যাবেন না। হঠাৎ করে রানু মন্ডলের এমন ধরনের মন্তব্য শুনে অবাক হয়ে গিয়েছেন সকলেই। ঐ ইউটিউবারের পাশাপাশি হাসছে গোটা নেটদুনিয়া। বলাই বাহুল্য, রানু মন্ডলের এমন মন্তব্যে হেসে কুটোপাটি খাচ্ছেন নেটনাগরিকদের একাংশ।

Related Articles

Back to top button