বলিউডবিনোদন

Praveen Kumar Sobti: ৭৬ বছর বয়সি পর্দার ভিমের জীবন যাপনের জন্য পেনশন পাওয়ার কাতর আবেদন সরকারের কাছে

আশির দশকের টেলিভিশন দর্শকদের কাছে ‘মহাভারত’ ছিল তাদের অন্যতম আকর্ষণেয় জায়গা। প্রতি সপ্তাহে তারা ঐ একটা দিনের অর্থাৎ রবিবারে অপেক্ষায় থাকতো। নিঃসন্দেহে বলা যায় সেইসময় সবথেকে জনপ্রিয় টেলিভিশন অনুষ্ঠান ছিল ‘মহাভারত’। আর সেই সমস্ত আশির দশকের মানুষের সামনে ভীম নামটা বললে একটাই মুখ ভেসে ওঠে তাদের চোখের সামনে। তিনি আর কেউ নন, তিনি প্রবীণ কুমার সোবতী। বর্তমানে তার বয়স ৭৬ বছর। সম্প্রতি এই প্রবীণ অভিনেতা নিজের শারীরিক অসুস্থতার কথা জানিয়ে সরকারের কাছে কাতর আবেদন জানিয়েছেন পেনশনের জন্য।

জানা যায়, একসময় এই প্রবীণ অভিনেতা একজন ভাল ক্রীড়াবিদ হিসেবেও দেশের নাম উজ্জ্বল করেছেন। জিতেছেন একাধিক পদকও। সম্প্রতি সেই ক্রীড়াবিদ সরকারের কাছে পেনশনের জন্য কাতর আবেদন জানিয়ে বলেছেন, বর্তমানে এই ৭৬ বছর বয়সে তিনি বাড়িতে বহুদিন ধরে রয়েছেন। আগের থেকে আরো অনেকটা তার শারীরিক অবনতি হয়েছে। মেরুদন্ডের সমস্যায় ভুগছেন তিনি। খাওয়া-দাওয়াতেও এসেছে একাধিক বিধি-নিষেধ। তার স্ত্রী ঘরের দেখাশোনা করে এবং তার মেয়ের বিয়ে হয়ে গিয়েছে মুম্বাইতে। কিন্তু তাকে এখন আর কেউ মনে রাখেননি। পাঞ্জাব সরকার তাকে পেনশন থেকে বঞ্চিত করেছে।

তিনি জানান, এশিয়ান গেমস বা পদক জয়ী সমস্ত খেলোয়াড়দের সরকার থেকে পেনশন দেওয়া হচ্ছে। শুধুমাত্র তাকেই বঞ্চিত করা হয়েছে। তিনি এও জানান, তিনিই সবচেয়ে বেশি পদক জিতেছেন। উল্লেখ্য, তিনিই ছিলেন একমাত্র ভারতীয় ক্রীড়াবিদ যিনি কমনওয়েলথের প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন। তবে বর্তমানে তাকেই পেনশন থেকে বঞ্চিত করছে পাঞ্জাব সরকার।

একসময় তিনি বিএসএফে ডেপুটি কমান্ড্যান্টের চাকরিও করেছেন। বর্তমানে বিএসএফের কাছ থেকে পেনশনও পাচ্ছেন। কিন্তু সেই পরিমাণ অর্থ তার জন্য যথেষ্ট নয়। তার বাড়ির এবং তার শারীরিক অবস্থার কথা জানিয়ে সরকারের কাছে পেনশনের আবেদন জানিয়েছেন তিনি। একসময় তাকে দেখেই পরিচালক বিআর চোপড়ার বলেছিলেন অবশেষে ভীমের সন্ধান মিলেছে। পরবর্তীকালে দক্ষ অভিনয়ের মাধ্যমে দর্শকমহলে বিপুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেন এই প্রবীণ অভিনেতা। ৫০টিরও বেশি ছবিতে তিনি অভিনয় করেছেন।

পরবর্তীকালে শারীরিক অসুস্থতার কারণে অর্থাৎ তার মেরুদণ্ডের সমস্যা বৃদ্ধির জন্য সবকিছুই ছাড়তে বাধ্য হন অভিনেতা। বর্তমানে তার এই আবেদন দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে সকলের।

Related Articles

Back to top button