ব্যবসা-বানিজ্য ও অর্থনীতি

Post Office Scheme: ৫০০ টাকা দিয়ে খুলুন এই পোস্ট অফিস অ্যাকাউন্ট, লাভ হবে ২৬ লাখ পর্যন্ত

পোস্ট অফিসের এই বিশেষ বিনিয়োগ স্কিমের নাম রেকারিং ডিপোজিট

×
Advertisement

পোস্ট অফিসে বিনিয়োগ করাকে সকলেই অত্যন্ত সুরক্ষিত বিনিয়োগ বলে মনে করেন। আসলে শেয়ার মার্কেট এবং মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ করলে সবসময়ই একটা আলাদা রকমের রিস্ক থেকে যায়। রিটার্ন ভালো হলেও থাকে প্রচুর ঝুঁকি। কিন্তু যদি আপনি পোস্ট অফিসের বিভিন্ন স্কিমে বিনিয়োগ করেন, তাহলে এই সমস্যা কিন্তু আপনার থাকবে না। আপনি যদি ভালো জায়গায় ইনভেস্ট করেন তাহলে আপনার টাকা একেবারে সুরক্ষিত থাকবে এবং কোন রিস্ক ছাড়াই আপনি দারুন রিটার্ন পেয়ে যেতে পারেন। চলুন জেনে নেওয়া যাক পোস্ট অফিসের কোন কোন প্ল্যান আপনার জন্য হতে পারে সব থেকে ভালো।

Advertisement

পোস্ট অফিসের স্মল সেভিংস স্কিম রেকারিং ডিপোজিটে যদি আপনি প্রতি মাসে ১০০ টাকা করে নিবেশ করেন তাহলে আমি এই অ্যাকাউন্ট ওপেন করতে পারেন। আপনি সর্বাধিক কত টাকা বিনিয়োগ করবেন সেটার কোন লিমিট নেই। রেকারিং ডিপোজিট আপনি নিজের সুবিধা মত এক বছর, দুই বছর অথবা তার বেশি সময়ের জন্য চালু করতে পারেন। এই যোজনায় পোস্ট অফিস প্রতি তিন মাস অন্তর সুদও দিয়ে থাকে।

পোস্ট অফিসের এই যোজনায় ১৮ বছর বা তার বেশি বয়সের ব্যক্তিরা বিনিয়োগ করতে পারেন। অভিভাবকরা তাদের অপ্রাপ্তবয়স্ক ছেলেমেয়েদের একাউন্ট খুলতে পারেন এই বিনিয়োগ স্কিম অনুযায়ী। তার পাশাপাশি এই পোস্ট অফিস স্কিমে আপনি লোন গ্রহণ করতে পারবেন। লোন গ্রহণ করার জন্য আপনাকে নিজের পোস্ট অফিসের ব্রাঞ্চে গিয়ে যোগাযোগ করতে হবে এবং তারপর ১২ টি কিস্তিতে আপনি নিজের ঋণ জমা করতে পারেন। আপনার একাউন্টে যত টাকা জমা রয়েছে তার মোটামুটি ৫০ শতাংশ টাকা পর্যন্ত আপনি ঋণ গ্রহণ করতে পারেন।

Advertisement

রেকর্ডিং ডিপোজিট যোজনায় যদি আপনি নিজের খাতা খোলেন এবং প্রতিমাসে ১৬ হাজার টাকা করে বিনিয়োগ করেন তাহলে ১০ বছর পরে আপনি ২৬ লক্ষ টাকার থেকেও বেশি রিটার্ন পেতে পারবেন। মনে করুন আপনি প্রত্যেক মাসে ১৬,০০০ টাকা করে জমা করলেন। তাহলে এক বছর পরে আপনার ব্যাংক একাউন্টে ১ লাখ ৯২ হাজার টাকা জমা হবে। এইভাবে আপনাকে ১০ বছর পর্যন্ত এই যোজনায় বিনিয়োগ করতে হবে। তাহলে কিন্তু সবশেষে আপনার পোস্ট অফিস একাউন্টে ১৯,২০,০০০ টাকা জমা হবে বিনিয়োগ হিসেবে। এরপরে আপনার যোজনা ম্যাচিওর হবার পরে আপনি রিটার্ন হিসেবে ৬,৮২,৩৫৯ টাকা পাবেন। অর্থাৎ ১০ বছর পরে আপনি একসাথে ২৬,০২,৩৫৯ টাকা পেয়ে যাবেন। এভাবেই আপনি রেকারিং ডিপোজিটে টাকা বিনিয়োগ করে প্রতি মাসে লাখ লাখ টাকা রোজগার করতে পারেন।

Related Articles

Back to top button