টলিউডবিনোদন

শাড়ি ছেরে অফ শোলডার ড্রেসে ‘অপরাজিতা অপু’র নন্দিনী, দেখুন সেই ছবি



রাত ৮ঃ৩০ বাজতেই মিঠাই শেষ অপরাজিতা অপু শুরু হয়। আর এই ধারাবাহিকে মিষ্টি অপুকে তো সবাই ভালোবেসে ফেলেছে। তবে এই নায়িকাকে অনেকেই পছন্দ করেননা। কারণ তিনি অপরাজিতা অপু ধারাবাহিকের অন্যতম ভিলেন অপুর আন্টি ২৷ দিদির গোছানো সংসার ভাঙর জন্য তিনি সব সময় মুখিয়ে রয়েছেন৷ আর ঘর ভাঙার সেই অভিব্যক্তি তার চোখে মুখেই ফুটে ওটে৷ এই ধারাবাহিকে আন্টি ২ সবসময় ভারী শাড়িই পরেন৷ সঙ্গে থাকে ভারী গয়না৷ মোটা কাজল আর মাথায় খোপা৷ আর এটাই অপুর আন্টি ২-র ইমেজ এই ধারাবাহিকে৷

অপুকে কোনভাবেই এই দুষ্টু মাসি শ্বাশুড়ি বাড়ির বউ হিসেবে মেনে নিতে পারেন না। তাই তো সব সময় দিদি অবলার কান ভাঙানোর জন্য তিনি প্রস্তুত৷ সারাক্ষণ দিদির কানে অপুর নামে নানান কুকথা বলেই চলেছে। প্রথম থেকে অপুর সঙ্গে বাড়ির ছেলে দীপুর বাধা দেওয়ারও হাজার চেষ্টা করেছিলেন৷ তবে জামাইবাবুর সাথে না পারায় এই বিয়ে হয়৷ শেষ পর্যন্ত বাড়ির বউ হয়ে আসে অপু৷ তারপর থেকে অপুর সব কাজে নজর তার আন্টি ২-র৷ যে কোনও উপায় অপুকে ছোট প্রমাণ করতে পারলেই, তিনি খুশি৷ তাই তো বাসি বিয়ের দিন দীপুর ঘরে কেরোসিন তেল দিয়ে আগুন লাগাতেও পিছপা হননি আন্টি ২।

দিদি অবলার সঙ্গে অপুর ভাব তিনি চান না৷ অন্যদিকে নিজের দিদির সংসারের সম্পত্তির উপর তাঁর নজর৷ তাই তো বাড়ির সব বউদের নিজে নিয়ন্ত্রণ করেন। উল্টে সকলের সাথে দিদির ঝগড়া বাধানোর চেষ্টা করেন৷ তবে অপুর সাথে না পারায় তাই নিয়ে তার খুব চিন্তার। সেও জানে কীভাবে শাশুড়ির মন জয় করে সংসারের সেরা হয়ে উঠতে হবে৷ ধীরেধীরে বাড়ির সকলের কাছে অপু হয়ে উঠছে প্রিয়৷ ধীরে ধীরে অবলার কাছেও প্রিয় পাত্রী হয়ে উঠছে। তবে শেষ পর্যন্ত কী অপু পারবে শাশুড়ির মন জয় করে আন্টি ২ কে শায়েস্তা করতেম সঙ্গে আবার নিজের কেরিয়ার তৈরি করতে। তার জন্য রাত ৮ঃ৩০ টে অপরাজিতা অপু দেখতেই হবে।

তবে জানেনকি অপুর এই মাসি শ্বাশুড়ি ওরফে আন্টি ২ ওরফে নন্দিনী চট্টোপাধ্যায় বাস্তবে খুবই স্টাইলিশ আর আধুনিকা৷ এক ঝলক তাঁকে প্রথম দেখলে অনেকেই হয়ত চিনতেই পারবেন না। মনেই হবেনা ইনি এই ধারাবাহিকের বয়স্ক শ্বাশুড়ি। কারণ ধারাবাহিকের সঙ্গে তাঁর বাস্তব জীবনে পোশাকের আর মুখের অভিব্যক্তির কোনও মিলই নেই৷ সাজের কোনো মিল নেই। সম্প্রতি আন্টি ২ ওরফে নন্দিনী লাল অফ শোলডার ড্রেসে তাক লাগিয়ে দিলেন৷ এমনভাবে দাঁড়ালেন ক্যামেরার সামনে, যেন সত্যিই ঝড় উঠল সকলের মনে।

দেখলে কী বোঝা যায় যে, তিনি এতটা গ্ল্যামারাস৷ সারাক্ষণ দুষ্টু বুদ্ধি করতে থাকা আন্টি টু যে এভাবে ক্যামেরার সামনে নিজেকে খোলামেলা করে মেলে ধরতে পারেন তা এই ছবি না দেখলে বোঝা যেত না৷ তবে শুধু নিজের সুন্দর সাজ নয়৷ আন্টি ২ ওরফে নন্দিনী দারুণ শিল্পী, তিনি আঁকেন খুবই সুন্দর৷ সব মিলিয়ে ধারাবাহিকের দুষ্টু চরিত্র হলেও বাস্তবে খুবই সুন্দর একজন মানুষ। সবসময় হাসি মজা করে থাকতে ভালোবাসেন।

Related Articles

Back to top button