×
বলিউডবিনোদন

একমুঠো ভাতের জন্য ভজন গাইতে হত নেহা কক্করকে, জেনে নিন তার দুঃখভরা জীবন কাহিনী

Advertisement

কৌশিক পোল্ল্যে: তার শৈশব কেটেছে চরম দুঃখ ও দুর্দশার মধ্য দিয়ে। বহু প্রতিকুলতাকে পার করে আজ নেহা কক্কর বলিউডের অন্যতম সেরা গায়িকা। কীভাবে তিনি গানের জগতে প্রবেশ করলেন এবং সাফল্য অর্জন করলেন আজ সেই অজানা কাহিনী চলুন জেনে নেওয়া যাক।

Advertisement

তিন ভাইবোনের মধ্যে‌ নেহা ছিলেন মেজো, তার দিদি সোনু কক্কর ও ভাই টোনি কক্কর দুজনেই আজ সংগীত জগতে যথেষ্ট পরিচিত, যদিও তাদের সাফল্যের যাত্রা এতটাও সহজ ছিল না। তারা খুবই দরিদ্র পরিবারের সন্তান ছিলেন, তাদের বাবা হৃষিকেশ কক্কর বিভিন্ন স্কুলের বাইরে সিঙ্গাড়া বেচতেন। তিনি একইভাবে নেহার স্কুলের সামনেও সিঙ্গাড়া বিক্রি করতেন, এই নিয়ে তাদের স্কুলের অনেকেই হাসাহাসি করত।

একমুঠো অন্নের জন্য তাদের পরিবারের প্রতিটি ভাইবোনকেই অন্যের বাড়িতে ভজন গাইতে যেতে হত। কোনো অনুষ্ঠানে কিংবা পুজোপার্বনে মায়ের সঙ্গে এই তিন ভাইবোন মাইক হাতে গলা মিলিয়ে গান গাইত। এরপর নেহা বড় হয়ে জনপ্রিয় রিয়্যালিটি শো ‘ইন্ডিয়ান আইডল’ এর দ্বিতীয় সিজনে অংশগ্রহণ করেন, যদিও কয়েকটি এপিসোডের পরই নেহা শো থেকে বিদায় নেন এবং অত্যন্ত গর্বের বিষয় আজ নেহা উক্ত শো এর বিচারক হিসেবে দায়িত্বপ্রাপ্ত হয়েছেন।

Advertisement

গানের জন্য ছোটবেলায় আলাদা করে কোনো প্রশিক্ষণ নেননি নেহা, যেটুকু শিখেছেন সবটাই তার মা ও দিদির হাত ধরেই। বলিউডে তিনি প্রথম গাওয়ার সুযোগ পান মিত ব্রাদার্সের হাত ধরে। আজ নেহা বলিউডের‌ সবচেয়ে জ‌‌‍নপ্রিয় গায়িকা এবং তার পারিশ্রমিকের অঙ্কটাও বেশ বড়সড়। গোটা ভারতবর্ষের নিরিখে আজ তিনিই সর্বচ্চো সার্চড হওয়া সংগীতশিল্পী।

Related Articles

Back to top button