কলকাতানিউজ

আনন্দপুরকাণ্ডে নয়া মোড়, মূল অভিযুক্তের আসল নাম অভিষেক পাণ্ডে

কলকাতা : ইতিমধ্যেই আনন্দপুরকাণ্ডে সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখেছে পুলিশ। আটক করা হয়েছে ওই অভিযুক্তের গাড়ি। এমনকি সবথেকে বড় ঘটনা, ওই ঘটনায় জড়িত অভিযুক্তের নাম অমিতাভ বসু নয়, তার নাম অভিষেক পাণ্ডে। তার বাড়ি পূর্ব যাদবপুরে। পুলিশ সূত্রে খবর ওই নির্যাতিতার বক্তব্যে রয়েছে একাধিক অসঙ্গতি। বার বার জিজ্ঞেস করা হলেও সে অনেক কিছুই গোপন করে গেছেন।

এমনকি দীর্ঘ ৫ বছরের সম্পর্ক ছিল দুজনের, এক সময়ে তারা দুজনেই সহকর্মী ছিলেন। কিন্তু কি এমন হলো যার কারণে দুজনের সম্পর্ক এরকম মোড় নিলো তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। প্রসঙ্গতশনিবার রাত ৮টা নাগাদ নয়াবাদের ফ্ল্যাটেরর সামনে থেকে হন্ডাসিটি করে আনন্দপুরের নির্যাতিতাকে ঘুরতে নিয়ে যায় অভিষেক পাণ্ডে। ঘুরতে বেড়িয়ে প্রথমে পাঁটুলির একটি রেস্তোরাঁয় যান তাঁরা। খাওয়া-দাওয়া সেরে বাইপাসের আশপাশে অনেকক্ষণ ঘোরাঘুরি করেন দুজন।

পরে অজয়নগর, গড়িয়া, কালিকাপুর হয়ে আনন্দনগর পৌঁছায় তাঁরা।এরপরেই ওই তরুণী অভিযুক্তকে নয়াবাদের বাড়িতে ছেড়ে দেওয়ার কথা বলার পরেই চৌবাঘার দিকে গাড়ি নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে অভিষেক। ওই তরুনী বাধা দেওয়ায় তখনই তাঁকে চলন্ত গাড়িতেই মারধর করে অভিষেক।

ইতিমধ্যেই খতিয়ে দেখা হয়েছে পাঁটুলির ওই রেস্তোরাঁর সিসিটিভি ফুটেজ। বাইপাসে যে সব সিগন্যালে গাড়িটি দাঁড়িয়েছিলো, সেখানকার সিসিটিভি ফুটেজও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কিন্তু এখনো খুঁজে পাওয়া যায়নি অভিষেককে। এদিন আনন্দপুরকাণ্ডে নির্যাতিতা মহিলাকে বাঁচাতে গিয়ে গুরুতর জখম হন নীলাঞ্জনা চট্টোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই তার অস্ত্রোপচার সফলও হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। তবে পুলিশ এখনো সম্পূর্ণ ঘটনার তদন্ত চালাচ্ছে।

Tags

Related Articles

Back to top button