নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“কালো টাকাকে সাদা টাকা করতে বিজেপিতে যোগদান করছে দলত্যাগীরা”, নদীয়া থেকে বিরোধীকে কটাক্ষ মুখ্যমন্ত্রীর

মুখ্যমন্ত্রী (Mamata Banerjee) এই দিন দাবী করেন," কালো টাকা সাদা করতেই বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন কিছু নেতা। সাথে তাদের টাকা গচ্ছিত রাখার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে তাদের।"

Advertisement

দলত্যাগী নেতাদের নিয়ে আবারও আক্রমণের সুড় চড়ালেন শাসক শিবিরের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী (Mamata Banerjee) এইদিন দাবী করেন,” কালো টাকা সাদা করতেই বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন কিছু নেতা। সাথে তাদের টাকা গচ্ছিত রাখার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে তাদের। সেই কারণে বিজেপিকে ভারতীয় জাঙ্ক পার্টি বলে অভিহিত ও করেন তৃণমূল দলনেত্রী।

নদিয়ার রানাঘাট মহকুমার হাবিবপুরের ছাতিমতলায় এইদিন জনসভা করেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার নিশানায় ছিল কেবল গেরুয়া শিবির। এইদিন মমতা অভিযোগ করেন, সিবিআই-ইডির জুজু দেখিয়ে অন্যান্য দলের নেতাদের দলে টানছে বিজেপি। এতদিন তৃণমূলের তরফে ‘ওয়াশিং মেশিন’ বলে কটাক্ষ করা হচ্ছিল। এইদিন তার রেশ টেনেই ডাস্টবিন বলে বিজেপিকে কটাক্ষ করেন মমতা। এইদিন তৃণমূল সুপ্রিমো দাবি করেন,কেউ টাকা নিয়ে বিজেপিতে যোগ দিলেই মাফ হয়ে যায় তাদের দোষ।

মমতার বক্তব্য,”সারাদেশে একনায়কতন্ত্র চলছে। কাউকে সিবিআই দেখিয়ে, কাউকে ইডি দেখিয়ে দলে টানছে। এমনি এমনি একটা করে কাগজ তৈরি করছে। যে কাগজ কোর্টে গিয়ে হারবে। তাদের কোনও দোষ নেই। এমন কাগজের কোনও ভ্যালু নেই। আগামীদিনে দেখে নেবেন। মিলিয়ে নেবেন। শুধু মানুষকে জব্দ করার জন্য…”।

এগিয়ে আসছে বিধানসভা নির্বাচন, তত বাড়ছে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যাওয়ার হিরিক। যাদের বিরুদ্ধে বিজেপি নেতারা নিজে দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছিলেন তাদেরও গেরুয়া শিবিরে স্বাগত জানানো হয়েছে। এমনকি শুভেন্দু অধিকারী দলে যোগ দিতে না দিতেই তার বিরুদ্ধে করা নারদার ভিডিওগুলি ডিলিট করে দেওয়া হয়েছে। সেই রেশ ধরে মমতা বলেন, ‘এই যে কয়েকজন গিয়েছেন, কেন গিয়েছেন বলুন তো? অনেক টাকা করেছে। কাউকে ইডির ভয় দেখিয়েছে, কাউকে সিবিআইয়ের ভয় দেখিয়েছে। এইসব ভয় দেখিয়ে বলেছে, যদি টাকা রাখতে চাও, তাহলে বিজেপিতে যাও, যদি কালো টাকা সাদা করতে চাও, তবে বিজেপিতে যাও, যদি দু’নম্বরি করতে চাও, তবে বিজেপিতে যাও, যদি টাকা মারতে চাও, তাহলে বিজেপিতে যাও। বিজেপিতে একেবারে জাঙ্ক পার্টি হয়ে গিয়েছে। ভারতীয় জাঙ্ক পার্টি সমস্ত ডাস্টবিনের মধ্যে সব ফেলে দিচ্ছে।আর সেই ডাস্টবিন থেকে বিজেপি করলে সাত খুন মাফ। অন্যরা করলে বন্ধ ঝাঁপ। সব চোর।’

Tags

Related Articles

Back to top button