Today Trending Newsনিউজপলিটিক্সরাজ্য

Live Update: শীতলকুচি ঘটনার সিআইডি তদন্ত হবে, কাল সকাল ১০ টায় কোচবিহারে যাবেন মমতা

চতুর্থ দফা নির্বাচনে ৪৪ টি বিধানসভা কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ করা হবে

×
Advertisement

একুশে বিধানসভা নির্বাচনের দামামা বেজে গেছে বাংলায়। আজ অর্থাৎ শনিবার, ১০ এপ্রিল চতুর্থ দফায় ভোটগ্রহণপর্ব সম্পন্ন হতে চলেছে। এই চতুর্থ দফা নির্বাচনে একদিকে যেমন একাধিক অনভিজ্ঞ তারকা প্রার্থী ভোটে নেমেছে, ঠিক অন্যদিকে আছে কিছু হেভিওয়েট দুঁদে রাজনৈতিক নেতাদের ভোটযুদ্ধ। আজকের চতুর্থ দফা নির্বাচন দক্ষিণবঙ্গের দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হাওড়া এবং হুগলিতে হচ্ছে। অন্যদিকে উত্তরবঙ্গের কোচবিহার এবং আলিপুরদুয়ারেও আজ ভোট আছে। মোট ৪৪ টি বিধানসভা কেন্দ্রে ৩৭৩ প্রার্থীর ভাগ্যপরীক্ষার দিন আজ। আজকের নির্বাচনে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলি যেমন তৃণমূলের শক্ত ঘাঁটি অন্যদিকে উত্তরবঙ্গের বিজেপি লোকসভা নির্বাচনে ব্যাপক ফলাফল করেছিল। এককথায় টানটান উত্তেজনা নিয়ে চলবে আজকের চতুর্থ দফা নির্বাচন।

Advertisement

বিকেল ৬:০০: বিজেপি প্রার্থী যশকে দেখে চন্ডিতলায় গো ব্যাক স্লোগান উঠল।

বিকেল ৫:৪৫: বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত ভোটদানের হার ৭৬ শতাংশ। তবে গোলমাল সত্বেও সবচেয়ে বেশি ভোট পড়েছে কোচবিহারে। সেখানে ভোটের সংখ্যা ৭৯.৭৩ শতাংশ।

Advertisement

বিকেল ৫:৩০: বৈশালী ডালমিয়ার কনভয়ে হামলার অভিযোগ উঠেছে। তাতেই বৈশালী ডালমিয়া ক্ষতিগ্রস্ত না হলেও তার কনভয়ের শেষের একটি গাড়ি ভাঙচুর হয়েছে।

বিকেল ৫:০৫: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আশ্বাস দিয়েছেন যে শীতলকুচি ঘটনা সিআইডি তদন্ত হবে। এই ঘটনার জন্য তিনি দায়ী করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে। বলেছেন কেন্দ্রীয় বাহিনীকে এখানে দোষ দেওয়ার মত কিছু নেই। ওরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর নির্দেশ মত কাজ করেছে। নির্বাচন কমিশনের হাতে পুলিশ প্রশাসন আছে। তাই ঘটনার সিআইডি তদন্ত হবে।

বেলা ৪:৩০: আগামীকাল সকাল ১০ টার মধ্যে কোচবিহারে যাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি সেখান থেকে যাবেন মাথাভাঙ্গা হাসপাতালে।

বেলা ৪:০০: গুজবের জেরে শীতলকুচিতে গুলি চলেছে জানালো কোচবিহার পুলিশ সুপার।

বেলা ৩:৩৫: দুপুর তিনটে পর্যন্ত ভোটদানের হার ৬৭ শতাংশ। হাওড়ায় ও হুগলিতে ভোট পড়েছে যথাক্রমে ৬৪.৮৮ ও ৬৭.৪৫ শতাংশ। তবে ঝামেলা সত্বেও সবচেয়ে বেশি ভোট পড়েছে কোচবিহারে।

বেলা ৩:৩০: হরিদেবপুরে বিজেপি প্রার্থী পায়েল সরকারের গাড়িতে হামলা চালিয়েছে একদল বিক্ষোভকারী। হামলায় তার গাড়ির পিছনের কাচ ভেঙে গেছে। তবে কারোর চোট লাগার খবর পাওয়া যায়নি।

বেলা ২.৪০: আগামী রবিবার শীতলকুচি যাবেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এছাড়াও রাজ্যজুড়ে কালো ব্যাচ পরে মিছিল করবেন তৃণমূল নেতাকর্মীরা।

বেলা ২:১০: শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথে যেখানে কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে গুলি চালানোর অভিযোগ উঠেছিল, সেখানে সিআরপিএফ মোতায়েন ছিল না বলে জানাল সিআরপিএফ।

বেলা ২:০০: বেলা ১:৩০ অব্দি ভোট পড়েছে ৫২.৮৯ শতাংশ। সবচেয়ে পিছিয়ে রয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা।

বেলা ১:৫০: শীতলকুচির ১২৫ নম্বর বুথে ভোট বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

বেলা ১:৩০: কেন্দ্রীয় বাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে তাদের আগ্নেয় অস্ত্র ছিনতাই করার চেষ্টা করার পরেই তারা বাধ্য হয়ে আত্মরক্ষার জন্য গুলি চালিয়েছিল। এমনটাই দাবি করেছে নির্বাচন কমিশন।

বেলা ১২:৩০: পাঁচলা জয়রামপুর ১৮৫ নম্বর বুথের এক কেন্দ্রীয় বাহিনী জওয়ান এক ব্যক্তিকে মেরে রক্তাক্ত কাণ্ড ঘটিয়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, ওই ব্যক্তি বাড়িতে বসে ভাত খাচ্ছিলেন এবং হঠাৎ করে এসে তাকে মারধর করা হয়।

বেলা ১২:০৫: কোচবিহারের ঘটনা অত্যন্ত দুঃখজনক বলে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেছেন, “কোচবিহারে যা হয়েছে তা অত্যন্ত দুঃখজনক। যাদের মৃত্যু হয়েছে তাদের পরিবারের জন্য সমবেদনা রইল।” সেইসাথে তৃণমূলকে কটাক্ষ করে বলেছেন, “বিজেপির প্রতি মানুষের সমর্থন দেখে তৃণমূল এবং তাদের গুন্ডাবাহিনী ভয় পাচ্ছে। তাই তারা এসব কাজ করছে।”

সকাল ১১:৪৫: সকাল থেকে ১১:০৫ অব্দি চতুর্থ দফা নির্বাচনে ভোট পড়েছে ১৬.৬৫ শতাংশ।

 

সকাল ১১:৩০: মাথাভাঙ্গায় বুথের বাইরে ভোটের লাইনে গুলি চালাল কেন্দ্রীয় বাহিনী। কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলির কারণে মৃত্যু হয়েছে ৪ জনের। তৃণমূল ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করেছে।  ইতিমধ্যেই নির্বাচন কমিশন ঘটনা রিপোর্ট তলব করেছে।

সকাল ১০ঃ৩০ঃ ভোট দিলেন তারকা প্রার্থী যশ, শ্রাবান্তি ও হিরণ।

সকাল ৯ঃ৩০ঃ কোচবিহারে তৃণমূল বিজেপি সংঘর্ষ ঠেকাতে লাঠিচার্জ করল কেন্দ্রীয় বাহিনী।

সকাল ৯ঃ০০ঃ গুলি চলল শিতলকুচিতে ভোটের লাইনে। তৃণমূল অভিযোগ জানিয়েছে এই কাজ করেছে বিজেপি। এর জেরে মৃত্যু হয়েছে আনন্দ বর্মণ নামক এক যুবকের। তার বয়স ১৮ বছর। সে জীবনে প্রথম ভোট দিতে এসেছিল।

সকাল ৮:১৫: কসবার বিজেপি প্রার্থী ইন্দ্রনীল খাঁ এর বিরুদ্ধে টাকা বিলানোর অভিযোগ উঠেছে। তৃণমূলের দাবি ওই বিজেপি প্রার্থী ১০০০ টাকা দিয়ে ভোটারদের প্রভাবিত করেছিল। তার প্রতিবাদে গো ব্যাক স্লোগান দেয় তৃণমূল কর্মীরা।

সকাল ৭:৫০: এজেন্ট বসা নিয়ে বেলুড়ের ৬৪ নম্বর বুথে তৃণমূল বিজেপির মধ্যে বচসা বাধে। বচসা কিছুক্ষণের মধ্যেই হাতাহাতিতে রূপান্তরিত হয়। তৃণমূলের অভিযোগ যে দলীয় এজেন্টদের বুথে বসতে দেয়নি বিজেপি। অবশ্য অভিযোগ অস্বীকার করেছে গেরুয়া শিবির।

সকাল ৭:৪৫: হেলমেট পরে বাড়ি থেকে বেরোলেন তৃণমূল প্রার্থী রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য। বললেন, “ঝড় ও শিলাবৃষ্টি হতে পারে রাস্তায়।”

সকাল ৭:৩০: চতুর্থ দফা নির্বাচনে ৯০০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৭৯৩ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী বুথের নিরাপত্তা থাকবে। বাকি বাহিনী এলাকায় টইলদারি চালাবে।

সকাল ৭:০০: শুরু হলো চতুর্থ দফা নির্বাচনের ভোটগ্রহণপর্ব।

Related Articles

Back to top button