BB Specialঅফবিটটলিউডবলিউডবিনোদনমিউজিক

সুর সম্রাজ্ঞী লতা মঙ্গেশকর – ৯১ এ পা রাখলেন পদ্মশ্রী সন্মানে সন্মানিত বহুমুখী সঙ্গীত শিল্পী

সঙ্গীত সাম্রাজ্যে লতা মঙ্গেশকর একটি উজ্জল নাম, উজ্জল নক্ষত্র। লতা মানেই কোকিলকণ্ঠী। মিষ্টি মধুর কন্ঠী লতার আওয়াজে বুঁদ আসমুদ্র হিমাচল। বাংলা হোক বা হিন্দি, সব ভাষাতেই তিনি তাঁর অবদান রেখেছেন। এখনও আবালবৃদ্ধবনিতা লতার গানে গা ভাসান।

আজ ২৮ শে সেপ্টেম্বর নয় নয় করে ৯০ পার করলেন এই সুর সম্রাজ্ঞী। শৈশবে বাড়িতে থাকাকালীন কে এল সায়গল ছাড়া আর কিছু গাইবার অনুমতি ছিল না তাঁর পরিবারের তরফ থেকে। বাবা চাইতেন ও শুধু ধ্রপদী গান নিয়েই থাকুক। তাঁর জীবনের একটা অদ্ভুত কাহিনী আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করি। লতাজি যখন কৈশোর পার করেন তখন তাঁর হাতে একটি রেডিও আসে। ওটাই তাঁর পাওয়া প্রথম রেডিও। উনি যেই মাত্র রেডিওটি অন করলেন, সেইমাত্র শুনলেন কে. এল. সায়গল আর বেঁচে নেই। সঙ্গে সঙ্গেই রেডিওটা ফেরত দিয়ে দেন তিনি। কে. এল. সায়গল হলেন একজন ভারতীয় অভিনেতা।

এই সুর সাম্রাজ্ঞী প্রথম কত টাকা উপার্জন করেছিলেন জানেন? মাত্র ২৫ টাকা। এরপর ১৯৭৪ সালে লন্ডনের রয়্যাল অ্যালবার্ট হলে লতাজি নিজের প্রথম প্রোগ্রাম করছিলেন। অবশ্য মাত্র ১০ বছর বয়স থেকেই রামলীলা-য় অংশ নিতেন লতাজি, সীতা-র চরিত্রে গাইতেন, অভিনয় তো করতেনই। কিন্তু তখনও তিনি ভাবেননি যে সুরের জগতে তিনি স্বনামধ্যন্যা হয়ে উঠবেন।

এরপর তিনি অসংখ্য গান গেয়ে শ্রোতাদের মন জয় করেছেন। এখন তাঁর গানের লিস্ট নিয়ে বসলে শেষ হবে না। তাই চলুন দেখে নিই আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এই সুর সাম্রাজ্ঞীকে কীভাবে শুভেচ্ছা জানাচলেন।

চর্চিত ও প্রতিবাদী মুখ কঙ্গনা রানাউত। তিনিও ট্যুইট করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন লতাজিকে।

এদিন লতা মঙ্গশকরের জন্মদিনে তাঁর বোন আশা ভোঁসলেও তাঁকে শুভেচ্ছা জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়েছেন। তিনি বলেনেছেন সঙ্গীর আর লতা মঙ্গেশকরের নাম পরস্পরের সঙ্গে যুক্ত। তিনিও তাঁর দিদির সুস্থ জীবন কামনা করি।

এমনকি ভারতীয় ক্রিকেট জগতের আরেক উজ্জ্বল নক্ষত্র সচিন তেন্ডুল্কর নিজের ট্যুইটারে লতাজি কে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেছেন, “আমার মনে নেই আমি কবে আপনার গান প্রথমবার শুনেছিলাম। তবে একটিও দিন এমন নেই যেদিন আমি আপনার গান শুনিনি। আমি সবসময় আপনার আশীর্বাদ পেয়েছি। আমার সেই দিনটার কথা এখনও মনে আছে, যেদিন আপনি, তু জাহা জাহা চলেগা গানের কথা নিজের হাতে লিখে আমায় উপহার দিয়েছিলেন। আমি সেই উপহার কোনও দিনই ভুলতে পারব না।’

আজও সবার হৃদয়ে তিনিই সুর সাম্রাজ্ঞী। তিনিই শ্রেষ্ঠা। বহু পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন তিনি। দাদা সাহেব ফালকে, পদ্মশ্রী, পদ্মবি ভূষণ সম্মানে সম্মানিত হয়েছেন । ‘ভারত বার্তা’-র তরফ থেকে ‘লতা মঙ্গেশকর’ কে জানাই অসংখ্য শুভেচ্ছা, ভালোবাসা আর শ্রদ্ধা।

Related Articles

Back to top button