বলিউডবিনোদনভাইরাল & ভিডিও

Kareena Kapoor Khan: বাবার আদরে খেলছে ছোট ছেলে জেহ ! দীপাবলীতে আদুরমাখা ছবি শেয়ার করলেন বেবো

করিনা কাপুর খান ও সইফ আলি খান শুধু এখন বলিউডের মিষ্টি কাপল নন। সেই সঙ্গে তাঁদের রয়েছে আরও এক পরিচয়। সইফিনা এখন তৈমুর ও জেহ-র বাবা মা। করিনা ও সইফের প্রথম সন্তান তৈমুর আলি খান জন্মের পর থেকেই সেলেব হয়ে উঠেছিল। তৈমুরের মিষ্টতায় পাগল ছিল গোটা বলিউড। বলিউড পাপারাৎজিরা কিছুতেই পিছন ছাড়ে না তৈমুরের। তবে এর খারাপ প্রভাব পড়েছে তৈমুরের শৈশবে। তৈমুর ক্যামেরা দেখলেই তাই এখন খুব রেগে যায়। অনেক বার পাপারাৎজিদের ছবি তুলতে বারণ করতেও দেখা গিয়েছে ছোট্ট তৈমুরকে। তাই এবার দ্বিতীয় সন্তানের বেলায় একটু কঠোর হয়েছিকেন করিনা।

তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, ছোট ছেলেকে পাপারাৎজিদের সামনে আনবেন না। যেমন বলা, তেমন কাজ। ৬ মাস পর্যন্ত কাউকে ছেলের নামটা পর্যন্ত বলেননি। পরিবার ও কাছের বন্ধুরা ছাড়া জেহর সঙ্গে কারোর দেখা হয়নি। তবে দেখা করতে পর্যন্ত দেননি। সবার থেকে আড়ালে রেখেছিলেন ছেলেকে। তবে সইফের জন্মদিনের দিন জেহর প্রথম ছবি প্রকাশ্যে আনেন। এখন প্রায়শই জেহের ছবি পোস্ট করেন করিনা আর পরিবারের অন্য সদস্যরা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ ভালোই সক্রিয় বেবো।প্রায়শই শ্যুটিংয়ের আর নিজের পরিবারের ব্যক্তিগত মুহূর্তের নানান রং এবং মুডের ছবি শেয়ার করে থাকেন সইফের আদুরে বেগম। করিনার মারফত এখন জেহ বেশ জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়াতে। এখন তৈমুর আর জেহ দুজনেই বেশ হিট। আজ দীপাবলি ছুটির মুড। আর এই অবসর সময়ে সদ্য বাবা-ছেলের আদর মাখা অবসর মুহূর্তের এক মিষ্টি ছবি করিনা নিজের ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করলেন। করিনার তরফ থেকে অনুগামীদের দীপাবলির প্রথম উপহার ও বললেও ভালো হয়। আর এই গিফট অনুগামীদের বেশ পছন্দ।

বেবোর শেয়ার করা ছবিতে দেখা যাচ্ছে, খোলা বাগানে মাঠের ওপর পাতা রয়েছে শতরঞ্চি। আর জেহ’র চারপাশে ছড়ানো আছে হরেক রকমের খেলনা। আর সেখানেই নরম রোদ পোহাতে পোহাতে খুনসুটি করতে ব্যস্ত সইফ ও জেহ। ছবি থেকেই স্পষ্ট একরত্তি জেহ-র সঙ্গে খেলায় মত্ত ব্যস্ত সইফ। এই মিষ্টি ছবি শেয়ার করে ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘ভালবাসা এবং আলো।’ এর অর্থ গভীর হলেও পরিষ্কার। অর্থাৎরং-বেরঙের আলো দিয়েই আলোকিত হয়ে ওঠে না দীপাবলি। কাছের এবং ভালবাসার মানুষদের উপস্থিতিতেই উজ্জ্বল হয়ে উঠেছে তাঁর জীবন। এই ছবি দেখে বাবা ছেলেকে ভালোবাসা জানিয়েছেন। নিমেষে ভাইরাল হয় এই মিষ্টি পোস্ট।

Related Articles

Back to top button