বলিউডবিনোদন

সঞ্জয় রাউতকে তীব্র ভাষায় প্রতিবাদ জানালেন অভিনেত্রী কঙ্গনা

'শিবসেনার গুন্ডারা আমায় ধর্ষণ করবে, বিজেপি তা দেখবে?' - কঙ্গনা রানাউত

সুশান্ত কেসে মাদক যোগের পর থেকে কঙ্গনা তীব্র ভাবে সরব হয়েছিলেন বলিউডের মাদকযোগ নিয়ে। একাধিক অভিনেতা প্রযোজকদের নাম নিয়ে নিয়েছিলেন এমনকি তাঁদের রক্তের নমুনা পরীক্ষা করার কথাও বলেছিলেন। এরপর মুম্বাই পুলিশের অসহযোগিতা নিয়েও অভিনেত্রী বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন যা মহারাষ্ট্র সরকারকে আঘাত করে।

কঙ্গনা মুম্বাইকে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের সঙ্গে তুলনা করায় ক্ষিপ্ত হয় মহারাষ্ট্র সরকার। শিবসেনার মুখপাত্র মুম্বাই পুলিশের কাছে ক্ষমা চাইতে বললে, অভিনেত্রী তা মানেননি। এরপরেই শিবসেনার মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত কঙ্গনাকে মুম্বাই প্রবেশ করতে না বলে। এখানেই শেষ নয়, নানান কটূক্তিতে কঙ্গনাকে বিদ্ধ করে মহারাষ্ট্র সরকার। এমনকি বিএমসি কঙ্গনার অনুপস্থিতেই তাঁর মুম্বাইয়ের অফিস ভেঙ্গে তছনছ করে দেয়। যার ফলস্বরূপ কঙ্গনা রবিবার রাজ্যপালের দ্বারস্থ হন।

এদিন শিবসেনার মুখপত্র ‘সামনা’তে নিজের কলম ‘রোখটোখ’-এ কঙ্গনাকে কেন্দ্র করে বিজেপিকে কটাক্ষ করেন। এদিন সঞ্জয় রাউত বলেন, “এটা দুঃখজনক, যে কঙ্গনা মুম্বইয়ের সঙ্গে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের তুলনা করেন, তাঁকেই মহারাষ্ট্রের প্রধান বিরোধী দল সমর্থন দিচ্ছে।” এর উত্তরে পাল্টা জবাব দেন কঙ্গনা, “ওয়াও! এটা দুর্ভাগ্যজনক যে, বিজেপি এমন একজনকে সুরক্ষা দিচ্ছে যে মাদক ও মাফিয়া পর্দা ফাঁস করেছে। তার পরিবর্তে বিজেপির উচিত ছিল, শিবসেনার গুন্ডারা যাতে আমার মুখ ভেঙে দেয়, ধর্ষণ করে বা প্রকাশ্যে গণপিটুনি দেয়, সেটা করতে দেওয়া। তাই না সঞ্জয়জী? একজন মহিলা যে মাফিয়াদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছে, তাঁকে সুরক্ষা দেওয়ার সাহস হয় কী করে ওদের?”

এরপরেই সঞ্জয় রাউতের সাংবাদিকদের মুখোমুখি হতে কঙ্গনাকে নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান এবং বলেন, “আমি কঙ্গনার বিষয়ে কথা বলা বন্ধ করে দিয়েছি। তবে উনি এই সময় যা যা করছেন সবই আমাদের নজরে রয়েছে। আমাদের মহান রাজ্য সম্পর্কে কোন রাজনৈতিক দল এবং কোন ব্যক্তি, কী ভাবছে সেটা আমরা বুঝতে হবে।”

Tags

Related Articles

Back to top button