নিউজপলিটিক্সরাজ্য

রাজ্যের নারী নির্যাতন নিয়ে ফের মমতার বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর

Advertisement

বেশ কিছুদিন আগেই রাজ্যের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর রাজ্যে চলা অরাজকতা নিয়ে শাসকদলকে কটাক্ষ করেছিলেন। সেই সময়ই তিনি রাজ্যে বাড়তে থাকা নারী নির্যাতনের ঘটনা সম্বন্ধে উদ্বেগ প্রকাশ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পরিসংখ্যান দেখিয়ে টুইট করেছিলেন। সেই টুইটে তিনি রাজ্য চলা নারী নির্যাতনের ঘটনা কেন এত হচ্ছে জানতে চেয়েছিলেন। কিন্তু এতদিন পরেও সেই টুইটের কোন উত্তর পাইনি রাজ্যপাল। তাই তিনি আবারো মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে জবাব চেয়ে চিঠি পাঠিয়েছেন। সেই চিঠি তিনি আজ সকালে টুইটারে পোস্ট করেন।

 

কয়েকদিন আগে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর নারী নির্যাতনের ঘটনায় পরিসংখ্যান তুলে রাজ্য সরকারের তীব্র নিন্দা করেন। এবার তিনি চিঠিতে মমতা বন্দোপাধ্যায় কে সরাসরি জানিয়েছেন যে, চলতি বছরের আগস্ট মাসে রাজ্যে ২২৩ টি ধর্ষণ ও ৬৩৯ টি অপহরণের ঘটনা ঘটেছে। তিনি এই তথ্য বর্ধমান, মেদিনীপুর, জলপাইগুড়ি ও মালদহের কমিশনারের থেকে জেনেছেন বলেও জানিয়েছেন। এর সাথে তিনি অভিযোগ জানিয়েছেন যে রাজ্যে মহিলাদের উপর অত্যাচার এবং নির্যাতন প্রসঙ্গে তিনি যে তথ্য তুলে দিয়েছিলেন সেই বিষয়ে রাজ্যের মুখ্যসচিব কিংবা স্বরাষ্ট্র দপ্তরের অতিরিক্ত মুখ্যসচিব কেউই কোনো প্রতিক্রিয়া দেখান নি। তিনি এই প্রতিক্রিয়া না পাওয়ার ঘটনাকে “অত্যন্ত দুঃখজনক” বলে আখ্যা দিয়েছেন। কিন্তু এরপর এই ব্যাপারে মুখ্যমন্ত্রী যাতে খুব তাড়াতাড়ি সদর্থক পদক্ষেপ নেয় তার আর্জি জানিয়েছেন তিনি।

এছাড়াও রাজ্যপাল এদিন মমতা প্রশাসন রাজনৈতিক নিরপেক্ষতা পালন করছে না বলে অভিযোগ জানিয়েছেন। টুইটে তিনি মমতার পুলিশ ও প্রশাসন রাজনৈতিক দলের হয়ে কাজ করার অভিযোগ জানিয়েছেন তিনি। এই রাজনৈতিক পুলিশ বা প্রশাসনিক দল গণতন্ত্রের পক্ষে দুর্ভাগ্যজনক বলে মনে করেন তিনি। তিনি বলেছেন রাজ্য পুলিশের নিরপেক্ষ হয়ে কাজ করার কথা। কিন্তু এই রাজ্যে পুলিশ একটি নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দলের দলদাস হয়ে কাজ করছে।

পুলিশ ও প্রশাসনের রাজনীতি কথা বলতে গিয়ে তিনি দিন কয়েক আগে নদীয়ায় শহীদ সেনা জওয়ানের প্রসঙ্গ তুলছেন। এদিন শহীদের শ্রদ্ধাজ্ঞাপন সোভাতে এলাকার বিজেপি বিধায়ককে পুলিশের ঢুকতে না দেওয়া নিয়ে চরম বিতর্ক সৃষ্টি হয়। এদিন তিনি টুইটে জানিয়েছিলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শাসনে রাজ্যে পুলিশের রাজনৈতিক নিরপেক্ষতা বলে আর কিছু নেই। তারা শাসকদলের দাসে পরিণত হয়েছে।” এছাড়াও তিনি উর্দিধারী পুলিশের এরকম অগণতান্ত্রিক কাজ মেনে নেবেন না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন।

Tags

Related Articles

Back to top button