নিউজপলিটিক্সরাজ্য

জরুরি তলব জেপি নাড্ডার, রাত্রে দিল্লি যাচ্ছেন শুভেন্দু অধিকারী

রাজ্যের ভোট পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ে কথা হতে পারে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল



কিছুদিন আগেই দিল্লির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সঙ্গে একাধিক বৈঠক সেরে ফিরেছেন রাজ্য বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তারপর আরো একবার পেলেন দিল্লি থেকে ডাক। আজ অর্থাৎ সোমবার রাতে দিল্লি যেতে চলেছেন শুভেন্দু অধিকারী। দিল্লি থেকে সরাসরি তিনি বৈঠক করবেন সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নড্ডার সঙ্গে। আগামীকাল বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতির সঙ্গে বৈঠক করার কথা বিরোধী দলনেতার। রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা, শুভেন্দু অধিকারী কে এহেন ঘনঘন দিল্লি তলব রাজ্য রাজনীতিতে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।

কয়েকদিন আগে রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি এবং ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর এর সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। এই বৈঠকের পরে রাজ্যপাল সরাসরি দিল্লি উড়ে গিয়ে দিল্লির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সঙ্গে একাধিক বৈঠক করেন। জানা যায় ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। শনিবার সমস্ত সফর শেষ করে কলকাতা থেকে এসেছেন রাজ্যপাল। তারপর আবারো রবিবার শুভেন্দু অধিকারী সরাসরি রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করেন।

রাজ্যপালের সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারীর এত ঘনঘন বৈঠক দেখে রাজনৈতিক মহলের ধারণা, রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি নিয়ে উঠে পড়ে লেগেছে বিজেপি। অন্যদিকে আবার হাইকোর্টে যাবার প্রস্তুতি নিয়েছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। মুকুল রায়ের বিধায়ক পদ খারিজ নিয়ে ইতিমধ্যেই সুর চড়িয়েছেন তিনি। বিধানসভার স্পিকারের কাছে তিনি লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন, তার পাশাপাশি কিভাবে মুকুল রায়ের বিধায়ক পদ খারিজ করা যায় সেই সব কিছু নিয়ে বিচার বিবেচনা করছেন শুভেন্দু। এছাড়াও বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছেন শুভেন্দু অধিকারী। রাজ্যের কয়জন এসপি এবং আইসিদের কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন শুভেন্দু। তার পরিপ্রেক্ষিতে জনস্বার্থ মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন শুভেন্দু অধিকারী এবং বেশ কয়েকজন চোখা চোখা আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি।

রাজনৈতিক মহলের ধারণা আগামীকাল বৈঠকে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতির সঙ্গে এই জনস্বার্থ মামলা নিয়ে কথাবার্তা হতে চলেছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য কিছুদিন আগেই প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক করে রাজ্যে ফিরেছেন শুভেন্দু অধিকারী। তার মাত্র ১০ দিনের মধ্যে আবারও বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তরফ থেকে জরুরি তলব রাজনৈতিক মহলের কাছে বেশ আগ্রহের বিষয় হয়ে উঠেছে বর্তমানে।

Related Articles

Back to top button