×
Today Trending Newsনিউজরাজ্য

বাংলার পর ‘মিশন দিল্লি’, ছুটি কাটিয়ে আবারও স্বমহিমায় ফিরছেন প্রশান্ত কিশোরের আইপ্যাক

তৃনমূল কংগ্রেসের হয়ে আগামী ২০২৪ লোকসভা নির্বাচনে পুরোদমে লড়াই করতে চলেছে আইপ্যাক

Advertisement

একুশের বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের জয়ের অন্যতম প্রধান কারণ ছিল ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা আইপ্যাক। ২১ সালে বাংলা বাঁচানো লক্ষ্য পূরণ করে এক মাসের ছুটি কাটিয়ে আবারো তৃণমূলের হয়ে কাজ করতে নামছে প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা। যদিও প্রশান্ত কিশোর নিজে স্পষ্ট করে দিয়েছেন তিনি আর সক্রিয়ভাবে আইপ্যাকের সঙ্গে যুক্ত নন। ২ মে পশ্চিমবঙ্গের ফল প্রকাশের পর নিজের কথা রেখে আইপ্যাক সংস্থা থেকে বেরিয়ে আসেন প্রশান্ত কিশোর।

Advertisement

২১ বিধানসভা নির্বাচনের আগে প্রশান্ত কিশোর ঘোষণা করেছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস এই নির্বাচনে ২০০ এর বেশি আসন পাবে এবং বিজেপি ১০০ পার করতে পারবে না। তিনি তার নিজের কথা রেখেছেন। কিন্তু তার পরেও তিনি ঘোষণা করে দিয়েছেন, এই সংস্থার সঙ্গে তিনি সক্রিয়ভাবে যুক্ত থাকতে চান না। তবে তিনি স্পষ্ট করেননি, তিনি পরোক্ষভাবে পরামর্শদাতার ভূমিকা পালন করবেন নাকি পুরোপুরি এই সংস্থা ছেড়ে দেবেন।

প্রশান্ত কিশোর বলেছিলেন, “আইপ্যাক সংস্থায় আমি ছাড়াও আরও অনেকে কঠোর পরিশ্রম করে থাকেন। কিন্তু সুনামের ভাগীদার শুধুমাত্র আমি হই। তাই এটাই আসল সময়, আমি নিজে পিছিয়ে গিয়ে অন্যদের সামনে আসার সুযোগ দিচ্ছি।” প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, যেভাবে আইপ্যাক সংস্থাকে ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল, ঠিক সেইভাবে ২০২৪ সালেও বাংলা দখলের অ্যাসাইনমেন্ট দেওয়া হবে এই সংস্থাকে। ২১ বিধানসভা নির্বাচনে প্রশান্ত কিশোর শুধুমাত্র তৃণমূলের কাজের খতিয়ান এবং বাঙালির আবেগকে কাজে লাগিয়ে ছিলেন। কিন্তু লোকসভা নির্বাচনে সেরকম করলে হবে না। নতুন করে রাজনৈতিক ঘুঁটি সাজাতে হবে এবং নতুন রণকৌশল তৈরি করতে হবে বিজেপিকে হারানোর। ২০২৪ সালে মমতার লক্ষ্য মিশন দিল্লি। সেই উদ্দেশ্যে ইতিমধ্যেই বার্তা দেওয়া হয়েছে আইপ্যাক সংস্থাকে।

Advertisement

চলতি সপ্তাহে এই সমস্ত সমস্ত কর্মীদের এক মাসের সবেতন ছুটি শেষ হয়েছে। আগামী সপ্তাহ থেকেই আবার পুরোপুরিভাবে কাজে নামতে চলেছে আইপ্যাক সংস্থা। সামনেই ২০২৪ লোকসভা নির্বাচন। তৃণমূলের পরিপ্রেক্ষিতে এই নির্বাচন অত্যন্ত বড় একটি নির্বাচন। আগামী শনিবার তৃণমূলের সাংগঠনিক বৈঠক ডাকা হয়েছে কালীঘাটে। সেখানে উপস্থিত থাকতে চলেছেন আইপ্যাক সংস্থার কয়েকজন এবং সম্ভবত প্রশান্ত কিশোর নিজেও থাকবেন সেই বৈঠকে। ওই বৈঠকেই স্পষ্ট হয়ে যাবে আগামী দিনে কি রণকৌশল নিয়ে এগোতে চলেছে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। তৃণমূলের পরবর্তী কর্মসূচি অনুযায়ী আই প্যাকের সকলে নতুন পোস্টিং তৈরি হয়ে যাবে। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে আইপ্যাকের ৫০০ কর্মী দিনরাত কাজ করে তৃণমূলকে তাদের কাঙ্খিত জয় এনে দিতে পেরেছেন। এই কারণেই ২০২৪ সালেও প্রশান্ত কিশোরের সংস্থার উপরেই ভরসা রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Related Articles

Back to top button