দেশনিউজ

গতি বৃদ্ধি করছে ভারতীয় রেলওয়ে, লঞ্চ হচ্ছে একেবারে নতুন সুপারফাস্ট ট্রেন

দেখে নেওয়া যাক এই ট্রেনের গতি কত হবে



এবার থেকে রাত আটটায় যদি হাওড়া থেকে ট্রেনে ওঠেন তাহলে পরের দিন সকাল আটটার মধ্যে দিল্লি পৌঁছে যেতে পারবেন। এরকম একটি অত্যন্ত দ্রুতগতির রেল সার্ভিসের সূচনা করেছে ভারতীয় রেলওয়ে। দিল্লি মুম্বাই এবং দিল্লি হাওড়া রুটের ট্রেনের জন্য এই নতুন পরিষেবা চালু করেছে ভারতীয় রেলওয়ে। মাত্র ১২ ঘন্টার মধ্যে এই রুটে যাতায়াত করা সম্ভব হবে, যার কারণে একদিকে যেমন নষ্ট হবে না সময় তেমনি অনেকের ক্ষেত্রে কিন্তু সুবিধা হবে।

আপনি যদি কোনো রোগীকে নিয়ে যান, কিংবা যদি আপনার ট্রেনে উঠতে কোন সমস্যা থাকে তাহলে সেক্ষেত্রে আপনার জন্য ভারতীয় রেলওয়ের এই বিশেষ ট্রেন অত্যন্ত কার্যকরী হবে কারণ এই ট্রেনে আপনাকে খুব কম সময়ে থাকতে হবে। সূত্রের খবর অনুযায়ী, আগামী ২০২৪ সাল পর্যন্ত এই নতুন প্রজেক্ট বাস্তবায়িত হয়ে যাবে। হাওড়া থেকে মুম্বাই যেতে মোটামুটি ২৫ ঘন্টা সময় লাগে যেখানে হাওড়া থেকে দিল্লি যেতে সময় লাগে ১৭ ঘণ্টা। ফলে এতক্ষণ যে সময়টা নষ্ট হয়, সেটা আর হবে না। ইতিমধ্যেই এই প্ল্যান উপর মহলের সবুজ সংকেত পেয়ে গেছে। খুব শীঘ্রই এই নতুন প্ল্যান এর উপরে কাজ করা শুরু হবে।

জানা যাচ্ছে দুটি রুটে ট্রেনের গতি বাড়িয়ে ১৬০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা করে দেওয়া। এর ফলে মুহুর্তের মধ্যে আপনারা ট্রেনে করে অন্য জায়গায় চলে যেতে পারবেন। জানিয়ে রাখি বর্তমানে দিল্লি হাওড়া রুটে ট্রেন মোটামুটি ৮৫ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা এবং দিল্লী মুম্বাই রুটে প্রতি ঘন্টায় ১৩০ কিলোমিটার গতিতে দৌড়ায়। কিন্তু, যদি ১৬০ কিলোমিটার গতিতে ট্রেনকে নিয়ে যেতে হয় তাহলে কিছু পরিবর্তন করতে হবে রেললাইনে এবং তার আশেপাশে।

ভারতীয় রেলওয়ে রাজার উচ্চপদস্থ ইঞ্জিনিয়ার বললেন, এত দ্রুত গতিতে যদি ট্রেন চালাতে হয় তাহলে সেরকম ধরনের লাইন প্রয়োজন যেগুলি এত দ্রুতগতির ট্রেনকে সামলাতে পারবে। তার সাথে সাথেই কড়া নজরদারি এবং লেভেল ক্রসিং এর সংখ্যা বৃদ্ধি করা হবে। যাত্রীদের নিরাপত্তাকেও অগ্রাধিকার দিয়ে ট্রেনের নিরাপত্তার জন্য অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি রাখা হবে। নিয়মিত ট্র্যাক পরিদর্শন এবং মেরামতের জন্য স্বয়ংক্রিয় মেশিন এবং সিগনালিং এবং টেলিকম এর জন্য প্রচুর খরচ করবে ভারতীয় রেলওয়ে।

Related Articles

Back to top button